কবিতা


আরাফাত

আব্দুল খালেক
পাটকেলঘাটা, সাতক্ষীরা।

শূন্য হাহাকার চারিদিকে তার

রিক্ত হৃদয়ে ভরা।

মাঝে মাঝে কিছু সবুজ বিটপী

আছে যেন আধমরা।

পাহাড়ে পাহাড় মাঝে ফাঁকা তার

নীরব স্বাক্ষী হয়ে

হাযার বছরের স্মৃতিটা যেন

ধরে আছে অবরোহে।

পাথরে কাঁকরে মোড়া দেহখানি

মরে নাই তার মন,

তবুও সেথায় জাবালে রহমত

আছে আজিও অবিরান।

বারেক বছরে আসে দলে দলে

সভ্য আদম জাতি,

মাগে মাগফিরাত চাইতে নাজাত

নতজানু হয়ে নতী।

একই আযানে যোহর, আছর

কছর করে পড়ে,

মজে সবে সেই রবের স্মরণে

গোনাহ-খাত্বা তুলে ধরে।

দিবার সুরুজ পাটে পড়ে গেল

অাঁধারে ডুবিল ধরা,

অাঁধার হৃদয় হ’ল কি আলো

কেঁদে সবে আধামরা।

যেখানে দাঁড়িয়ে আখেরী নবী

লক্ষ ছাহাবা মাঝে,

দিলেন পৃথিবীর আখেরী ভাষণ

মানব মুক্তি যাচে।

এরই মাঝে ধরা বুকে ইশারা

নয় বাকী বেশী দিন,

ক্বিয়ামত তক আসিবে না আর

মহানবী (ছাঃ) আল-আমীন।

সবে আদম সন্তান যদিও

ভাষা রঙে ভিন্ন,

আরাফাতে মিলে বুঝালো তাকে

মোরা এক অনন্য।

আদি নবী হায় যেথায় দাঁড়িয়ে

চেয়েছিলেন মাগফেরাত

আখেরী ভাষণ দিলেন শেষনবী

নাম তার আরাফাত।

 

মসজিদে মন ছুটলো গো

মোল্লা আব্দুল মাজেদ
পাংশা, রাজবাড়ী।

আজ প্রভাতে নীল দীঘিতে সকল কলি ফুটলো গো

পীযুষধারা আহরণে মৌমাছিরা জুটলো গো।

সমীরণে দোদুল দোলে

দেখে আমার নয়ন তোলে

শান্ত এ মণ কোলাহলে

কেমন  জেগে উঠলো গো।

এ কোন সুধার আযান শুনে কাটলো নিশি মোর

তাই তো বুঝি এই জীবনে আসলো এমন ভোর।

প্রভাত রবি আবির রঙে

চুম দিয়ে যায় সংগোপনে

পরশে তার সবার মনে

রাতের তিমির টুটলো গো।

সবখানে আজ দিচ্ছে সাড়া প্রভাত পাখীর গান

আবেদ জনের কণ্ঠে শুনি আল্লাহ পাক কুরআন।

এমনি তর ধরার মাঝে

মন বসে না কোন কাজে

ভক্তি নিয়ে হৃদয় মাঝে

মসজিদে মন ছুটলো গো\

 

বাঁচার দাবী

আতিয়ার রহমান

কলারোয়া, সাতক্ষীরা।

ফুটপাতের মানুষগুলো আর্ত চিৎকারে

বাঁচার দাবী তোলে,

আকাশ স্পর্শী উচ্চ চূড়ায়

পৌঁছাতে চায় তাদের চিৎকার।

কিন্তু ইথার বহনে নারাজ

শোনে না তাদের আবেদন,

আল্লাহর দেওয়া সম্পদ আর খাদ্য

তারাই ভোগ করুক সব।

আমরা শুধু চাই বাঁচতে

আর মাথা গুজার এতটুকু ঠাই পেতে।

সেটা থেকেও সামাজিক কায়েমী স্বার্থ

বঞ্চিত করেছে চিরকাল।

কারণ অহি-র বিধান কায়েম না থাকায়

অর্থনীতি আজ হিমাদ্রীর

নিদারুণ বাঁধায় অবরুদ্ধ।

পূঁজিবাদের ভীষণ মর্ম বিদারী যাতাকলে

পূঁজি হীনের পাঁজর ছিন্ন ভিন্ন।

ডাক এসেছে, অহি-র বিধান কায়েমের ডাক

আহলেহাদীছ আন্দোলনের পতাকা তলে

সকলে সমবেত  হওয়ার ডাক।

হুঙ্কার তোল, গগন বিদারী হুঙ্কার,

অহি-র বিধান কায়েমের হুঙ্কার।

যে হুঙ্কারে আকাশ বাতাস

প্রকম্পিত হয়ে ওঠে

আর কুরআনের পতাকা

পত পত করে আকাশে

উড়তে থাকে।

***