সংগঠন সংবাদ

আন্দোলন  

সাতক্ষীরা সফরে আমীরে জামা‘আত

৩রা জুলাই বৃহস্পতিবার : অদ্য সকালে মারকাযী মাদরাসার শিক্ষক শামসুল আলমকে সাথে নিয়ে ট্রেন যোগে মুহতারাম আমীরে জামা‘আত দুপুর সোয়া ১২-টায় যশোর পৌঁছেন। সেখানে তাঁকে অভ্যর্থনা জানান সাতক্ষীরা যেলা ‘আন্দোলন’-এর কর্মপরিষদ সদস্য অধ্যাপক মহীদুল ইসলাম ও অধ্যাপক মুফলেহুর রহমান। অতঃপর তিনি কেশবপুর ও চুকনগর হয়ে সাতক্ষীরার তালা উপযেলাধীন কাটাখালি গমন করেন। সেখানে সদ্য প্রয়াত মামাতো ভাই ‘আন্দোলন’-এর নিবেদিতপ্রাণ কর্মী রফীকুল ইসলাম খান (৫০)-এর জানাযায় ইমামতি করেন। তিনি আগের দিন রাতে খুলনা আড়াইশ’ বেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহে রাজেঊন)। মৃত্যুকালে তিনি ৪ কন্যা ও ১ পুত্র সন্তান রেখে যান। জানাযা শেষে মুহতারাম আমীরে জামা‘আত স্বীয় জন্মস্থান বুলারাটি গমন করেন। অতঃপর সাতক্ষীরা মারকাযে রাত্রিযাপন শেষে পরদিন ভোরে রওয়ানা হয়ে যশোরে এসে ট্রেন ধরেন এবং অপরাহ্নে রাজশাহী মারকাযে পৌঁছে যান।

আমীরে জামা‘আতের তাহেরপুর সফর

১৪ই জুলাই সোমবার : অদ্য বেলা ১১-টায় মুহতারাম আমীরে জামা‘আত রাজশাহী-দক্ষিণ যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি ডাঃ ইদরীস আলী, সেক্রেটারী অধ্যাপক আমীনুল ইসলাম ও নাটোর যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি ড. মুহাম্মাদ আলীকে সাথে নিয়ে তাহেরপুরের উদ্দেশ্যে মারকায ত্যাগ করেন। যেলা ‘আন্দোলন’-এর সাবেক সহ-সভাপতি ও বর্তমানে উপদেষ্টা ডাঃ মনছূর আলী ও তার শোকাহত পরিবারকে সান্ত্বনা ও তাদের প্রতি সমবেদনা জানানোর উদ্দেশ্যে মুহতারাম আমীরে জামা‘আত এই সফর করেন। মাত্র কয়েকদিন পূর্বে তাঁর জামাতা (৩২) আকস্মিকভাবে মৃত্যুবরণ করায় আমীরে জামা‘আত অত্যন্ত ব্যথিত ও মর্মাহত ছিলেন। সেখানে পৌঁছে তিনি তাহেরপুর হাইস্কুল সংলগ্ন জামে মসজিদে যোহরের ছালাত আদায় করেন ও মুছল্লীদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখেন। অতঃপর ডাঃ মানছূরের বাড়ীতে গমন করেন এবং সদ্য বিধবা মেয়ে ও তার পিতা-মাতা, শ্বশুর ও পরিবারবর্গের সবাইকে সমবেদনা জানান ও তাদেরকে ধৈর্য ধারণের উপদেশ দেন। তিনি আল্লাহর নিকটে এর উত্তম প্রতিদান কামনা করে প্রাণখোলা দো‘আ করেন।

অতঃপর তিনি ডাঃ ছাহেবের ডিসপেন্সারীর ছাদের উপর আয়োজিত কর্মী ও সুধী সমাবেশে ভাষণ দেন। এরপর সেখান থেকে ফেরার পথে তিনি বিভিন্ন এলাকা সফরের ইচ্ছা ব্যক্ত করেন। তখন সেক্রেটারী অধ্যাপক আমীনুল ইসলাম মোবাইল ফোনের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট এলাকাসমূহের দায়িত্বশীলদের জানিয়ে দেন। সে অনুযায়ী তিনি তাঁর প্রতিষ্ঠিত হাটগাঙ্গোপাড়া বাজার আহলেহাদীছ জামে মসজিদে এসে আছরের ছালাত আদায় করেন। অতঃপর সমবেত মুছল্লীবৃন্দ ও দায়িত্বশীলদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখেন। মসজিদ থেকে বেরিয়ে তিনি স্বতঃস্ফূর্তভাবে জমা হওয়া বাজারের দোকানদার ও ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ্যে হাদীছ শুনিয়ে বলেন, আপনারা ব্যবসায়ে প্রতারণা করবেন না। মাপে ও ওযনে কমবেশী করবেন না। খাদ্যে ভেজাল মিশাবেন না। এতে আপনারা আখেরাতে লাভবান হবেন। ব্যবসায়ে আল্লাহ বরকত দিবেন। বাজারের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা তাদের মাঝে আমীরে জামা‘আতকে পেয়ে আবেগে আপ্লুত হয়ে ওঠে। কর্মীরা দারুণভাবে উজ্জীবিত হন।

অতঃপর তিনি কেশরহাট বাজার আহলেহাদীছ জামে মসজিদে উপস্থিত হন। সেখানে যেলার পক্ষ হতে পুর্ব থেকেই ইফতার মাহফিলের প্রোগ্রাম নির্ধারিত ছিল। তিনি সেখানে উপস্থিত কর্মী ও সুধীদের উদ্দেশ্যে ভাষণ দেন। অতঃপর সন্ধ্যার পূর্বেই মারকাযে ফিরে আসেন।

১০ই আগস্ট রবিবার : অদ্য সকালে মুহতারাম আমীরে জামা‘আত ও তাঁর ২য় পুত্র আহমাদ আব্দুল্লাহ নাজীব রাজশাহী থেকে বাসযোগে রওয়ানা হয়ে দুপুরে সাতক্ষীরা পৌছেন। সেখানে যেলা নেতৃবৃন্দ তাঁকে স্বাগত জানান। সাতক্ষীরা পৌঁছেই তিনি পার্শ্ববর্তী দেবনগরে ভাগিনেয়ীর শ্বাশুড়ীর জানাযায় যোগদান করেন এবং ইমামতি করেন। ইনি ছিলেন আমীরে জামা‘আতের পিতার প্রতিষ্ঠিত কাকডাঙ্গা আহমাদিয়া সিনিয়র মাদরাসার সাবেক শিক্ষক ক্বারী ঈসা-র স্ত্রী। অত্যন্ত দুর্বল স্বাস্থ্য নিয়ে তিনিও স্ত্রীর জানাযায় অংশ নেন। তাঁর পুত্র মোহেববুল্লাহ আমীরে জামা‘আতের বড় বোনের একমাত্র জামাতা। জানাযা শেষে শহরে ছোট বোনের বাসায় খাওয়া ও বিশ্রাম শেষে বিকাল সোয়া ৫-টায় বাঁকাল দারুল হাদীছ আহমাদিয়া সালাফিইয়াহ কমপ্লেক্স জামে মসজিদে আয়োজিত কর্মী ও সুধী ও অভিভাবক সমাবেশে যোগদান করেন। যেলা সভাপতি মাওলানা আব্দুল মান্নানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সম্মেলনে মুহতারাম আমীরে জামা‘আত ঘণ্টাব্যাপী ভাষণে দীর্ঘ ১৪ বছর পরে তাঁর প্রথম বিদেশ সফর এবং ওমরাহ ও ই‘তিকাফের বিভিন্ন দিক ও অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন। তিনি সর্বান্তঃকরণে আল্লাহর শুকরিয়া আদায় করেন এবং সকলকে নিবেদিতপ্রাণ হয়ে কাজ করার আহবান জানান। পবিত্র ওমরাহ শেষে দেশে ফিরে প্রথম সফরে তিনি সাতক্ষীরা আসায় বিপুল জনসমাবেশ ঘটে। উক্ত সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় প্রধান উপদেষ্টা প্রফেসর নযরুল ইসলাম এবং ‘আন্দোলন’ ও ‘যুবসংঘে’র যেলা উপদেষ্টা ও দায়িত্বশীলবৃন্দ। বাদ মাগরিব তিনি যেলা ও উপযেলা দায়িত্বশীলদের সঙ্গে পৃথক বৈঠকে মিলিত হন এবং তাদেরকে সচেতনভাবে দায়িত্ব পালনের আহবান জানান। এ সময় তিনি দেশে ও বিদেশে বিরোধীদের বিভিন্ন অপপ্রচার থেকে তাদের সাবধান করে দেন।

নগরঘাটা গমন : মঙ্গলবার সকাল ৮-টায় তিনি তালা উপযেলাধীন নগরঘাটা গমন করেন। যাওয়ার পথে সাতক্ষীরা যেলা ‘আন্দোলন’-এর সাবেক সভাপতি আলহাজ্জ মাষ্টার আব্দুর রহমান ছাহেবের ইটেগাছার বাসায় গমন করেন। যিনি বার্ধক্য প্রপীড়িত অবস্থায় সর্বদা বাসায় অবস্থান করেন। সেখান থেকে বেরিয়ে তিনি নগরঘাটা রওয়ানা করেন। সাতক্ষীরা-খুলনা মহাসড়কের তিরিশমাইল নামক স্থানে উপযেলা দায়িত্বশীল ও কর্মীবৃন্দ তাঁকে অভ্যর্থনা জানান। অতঃপর তাদের সাথে নগরঘাটা পৌঁছে যান। সেখানে সদ্যপ্রয়াত সাবেক চেয়ারম্যান তোফাযযল হোসায়েন তাজেল চেয়ারম্যানের কবর যেয়ারত করেন এবং উপস্থিত মুছল্লী-জনতার উদ্দেশ্যে ভাষণ দেন। তিনি সকলকে মৃত্যু ও মৃত্যু পরবর্তীকালীন জীবনের কথা স্মরণ করিয়ে দেন এবং সকলকে পবিত্র কুরআন ও ছহীহ হাদীছ অনুযায়ী জীবন গড়ার মাধ্যমে পরকালীন মুক্তির প্রস্ত্ততি গ্রহণের আহবান জানান। অতঃপর তিনি চেয়ারম্যান ছাহেবের বাড়ীতে গিয়ে তাঁর বিধবা স্ত্রী ও পুত্র-পরিজনদের সান্ত্বনা দেন ও তাদেরকে ধৈর্য ধারণের উপদেশ দেন। তিনি তাদেরকে প্রকৃত আহলেহাদীছ পরিবার হিসাবে দৃঢ় থাকার নছীহত করেন।

উল্লেখ্য যে, ওমরাহ গমনের দু’দিন পূর্বে ক্যান্সারে আক্রান্ত চেয়ারম্যান ছাহেব মাওলানা আব্দুল মান্নানের মোবাইল ফোনের মাধ্যমে মুহতারাম আমীরে জামা‘আতের নিকট দো‘আ চান। অতঃপর ১৭ই জুলাই বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত সাড়ে ১১-টায় তিনি সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহে রাজেঊন)। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৬৫ বছর। তিনি স্ত্রী, ৩ পুত্র ও ১ কন্যা রেখে যান। পরদিন নিজ গ্রামে তাঁর জানাযা হয়। সাতক্ষীরা যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মাওলানা আব্দুল মান্নান তাঁর জানাযায় ইমামতি করেন।

উল্লেখ্য, ২০১১ সালের ১৫ই মে চেয়ারম্যান ছাহেবের আমন্ত্রণে মুহতারাম আমীরে জামা‘আত সাতক্ষীরা যেলা সম্মেলন শেষে পরদিন রাজশাহী ফেরার পরে সর্বপ্রথম তাঁর বাড়ীতে আগমন করেন এবং বিরাট জনসমাবেশে ভাষণ দেন (দ্রঃ আত-তাহরীক ১৪/৯ সংখ্যা জুন/২০১১ পৃঃ ৪৭-৪৮)। নগরঘাটা থেকে ফিরে সাতক্ষীরা পৌঁছে তিনি তাঁর মামী শ্বাশুড়ী সাবেক প্রতিমন্ত্রী ডাঃ আফতাবুযযামানের স্ত্রীর কবর যিয়ারত করেন। যিনি ১৮ই জুলাই শুক্রবার বিকাল ৩-টায় নিজ বাসভবনে ৬২ বছর বয়সে ইন্তেকাল করেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহে রাজেঊন)

জানাযা থেকে ফেরার পথে তিনি বিনেরপোতা ‘আব্দুল্লাহ ফুড’ বিস্কুট কারখানা পরিদর্শন করেন। সৎ ব্যবসায়ী হিসাবে ইতিমধ্যে প্রশংসিত এ প্রতিষ্ঠানের উন্নতির জন্য তিনি দো‘আ করেন। তাদের উদ্যোগে এখানে একটি আহলেহাদীছ মসজিদ প্রতিষ্ঠিত হয়েছে জেনে তিনি আরো খুশী হন এবং সেখানে আহলেহাদীছ আন্দোলনের অগ্রগতির জন্য দো‘আ করেন।

অতঃপর সাতক্ষীরা ফিরে ১৩ই আগস্ট বুধবার দুপুরে বাসযোগে রওয়ানা হয়ে আমীরে জামা‘আত রাত সাড়ে ৮-টায় নওদাপাড়া কেন্দ্রীয় মারকাযে পৌঁছে যান।

ওমরাহ পালন ও ই‘তিকাফ শেষে মুহতারাম আমীরে জামা‘আতের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন

৩রা আগস্ট রবিবার : ওমরাহ ও ই‘তিকাফ সহ ১৮ দিনের সঊদী আরব সফর শেষে সাঊদীয়া এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে অদ্য দুপুর ২-টায় স্বদেশ প্রত্যাবর্তন করেন মুহতারাম আমীরে জামা‘আত এবং রাত পৌনে ১২-টায় তিনি রাজশাহী কেন্দ্রীয় মারকাযে ফিরে আসেন। এ সময় সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা-কর্মী এবং মাদরাসার শিক্ষক, ছাত্র ও পার্শ্ববর্তী এলাকা থেকে আগত দায়িত্বশীল ও কর্মীবৃন্দ তাঁকে স্বাগত জানান।

উল্লেখ্য, আমীরে জামা‘আত ১৬ই জুলাই ১৭ই রামাযান বুধবার ওমরাহ পালনের উদ্দেশ্যে সঊদী আরব গমন করেন। সফরসঙ্গী ছিলেন তাঁর মেজ পুত্র আহমাদ আব্দুল্লাহ নাজীব। ১৭ই জুলাই বৃহস্পতিবার সঊদী আরব সময় রাত সোয়া ২-টায় জেদ্দায় নামার পর সাহারী সেরে তিনি মক্কার উদ্দেশ্যে যাত্রা করেন এবং মাসজিদুল হারামে পৌঁছার পর সকাল সাড়ে ৬-টা থেকে সাড়ে ৯-টার মধ্যে ওমরাহ সম্পন্ন করেন। অতঃপর একই দিন বিকালে রামাযানের শেষ দশক শুরু হওয়ার এক দিন পূর্ব থেকেই মসজিদুল হারামের নীচতলা তথা বেজমেন্টে নির্ধারিত ই‘তিকাফস্থলে অবস্থান শুরু করেন।

ই‘তিকাফকালে তাঁর সাথে ভারতের প্রখ্যাত দাঈ ও ‘পিস’ টিভির স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠাতা ডাঃ যাকির নায়েক, পাকিস্তানের ইসলামাবাদ আন্তর্জাতিক ইসলামিক ইউনিভার্সিটির সাবেক অধ্যাপক ও বর্তমানে ‘আল-হুদা ইন্টারন্যাশনালে’র ডাইরেক্টর ডঃ মুহাম্মাদ ইদরীস যোবায়ের প্রমুখ ব্যক্তিত্বের সাক্ষাৎ হয়। এছাড়া মক্কা, জেদ্দা, রিয়াদ, খাফজীসহ অন্যান্য এলাকা থেকে আগত ‘আন্দোলন’-এর প্রবাসী শাখার নেতা-কর্মীবৃন্দ ও প্রবাসে অবস্থানরত অনেক শুভানুধ্যায়ী ভাই তাঁর সাথে সাক্ষাৎ করেন।

উল্লেখ্য যে, ঈদের আগের রাতে জেদ্দায় সুপ্রসিদ্ধ ফৎওয়া ওয়েবসাইট ‘ইসলাম কিউ-এ’-এর পরিচালক শায়খ ছালেহ আল-মুনাজ্জিদের সাথে নির্ধারিত বৈঠক ছিল। কিন্তু হঠাৎ গাড়ী দুর্ঘটনায় তাঁর ভাতিজার মৃত্যু হওয়ায় তিনি ঐদিনই রিয়াদ গমন করেন। ফলে বৈঠকটি হ’তে পারেনি।

২৮শে জুলাই সোমবার ঈদের ছালাত : ঈদের দিন ভোর সাড়ে ৪-টায় ফজরের ছালাত আদায়ের পর সকাল ৬টা ৭ মিনিটে বর্তমান বাদশাহ আব্দুল্লাহ কর্তৃক নির্মিতব্য মাসজিদুল হারামের সর্বশেষ বর্ধিত অংশে ঈদের ছালাত আদায় করেন আমীরে জামা‘আত। ঈদের ছালাত শেষে তিনি সফরসঙ্গী মেজ ছেলে ও রিয়াদ থেকে যুক্ত হওয়া আব্দুল বারী, ইমরান হোসায়েন, ও জেদ্দা থেকে আগত সাঈদুল ইসলামকে সাথে নিয়ে পুরা হারাম এলাকা পরিদর্শন করেন। অতঃপর হারাম সংলগ্ন যমযম টাওয়ারস্থ হোটেল মারওয়া রায়হানে স্বীয় কক্ষে ফিরে যান।

ত্বায়েফ গমন : অতঃপর ঈদের দিন বিকালে তিনি ত্বায়েফ পরিদর্শনে যান। সেখানে তিনি ক্বিছাছ মসজিদ, হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আববাস (রাঃ)-এর বাসগৃহ ও কবরস্থান, বিশালায়তন ইবনু আববাস ও কিং ফাহদ জামে মসজিদসহ বিভিন্ন ঐতিহাসিক স্থান পরিদর্শন শেষে রাতে মক্কায় ফিরে আসেন। ত্বায়েফে ৩৫ বছর ধরে অবস্থানরত আব্দুল মজীদ (নোয়াখালী) তাদেরকে নিজ গাড়ীতে নিয়ে সবকিছু ঘুরে দেখান। ইনি ৩৫ কপি আত-তাহরীকের এজেন্ট ছিলেন।

জেদ্দা সফর : পরের দিন ২৯ শে জুলাই মঙ্গলবার জেদ্দা সফরে যান এবং সেখানে জেদ্দা ‘আন্দোলন’-এর নেতৃবৃন্দের সাথে বৈঠকে মিলিত হন। বিকালে জেদ্দা শাখার কর্মী আবু তাহেরের সাথে জেদ্দা শহর, সমুদ্র সৈকত, মৎস্য মার্কেট সহ বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করেন। অতঃপর বাদ এশা জেদ্দা শাখা আয়োজিত সমাবেশে যোগদান করেন।

৩০শে জুলাই বুধবার বাদ ফজর আমীরে জামা‘আতের সাথে তাঁর হোটেল কক্ষে সাক্ষাৎ করেন ফিলিস্তীনের ‘বায়তুল আক্বছা’র সম্মানিত ইমাম শায়খ আলী আল-আববাসী। তাঁর সঙ্গে বর্তমান গাযা পরিস্থিতি নিয়ে দীর্ঘ আলোচনা হয়। তিনি এজন্য মুসলিম উম্মাহর অনৈক্য ও রাজনৈতিক স্বার্থদ্বন্দ্বকে দায়ী করেন। এসময় আমীরে জামা‘আত তাঁকে তাবলীগী ইজতেমা-২০১৫-এ আগমনের দাওয়াত প্রদান করলে তিনি আন্তরিক ইচ্ছা পোষণ করেন। অতঃপর বাদ যোহর আমীরে জামা‘আত মক্কার বিভিন্ন ঐতিহাসিক স্থান পরিদর্শনে বের হন এবং মিনা, আরাফাহ, মুযদালিফা, জামরাহ, জাবালে রহমত, হেরা পাহাড় প্রভৃতি স্থান পরিদর্শন করেন।

একই দিন বাদ এশা হোটেল কক্ষে তাঁর সাথে সাক্ষাৎ করেন দাম্মাম ইসলামিক সেন্টারের প্রখ্যাত বাঙ্গালী দাঈ শায়খ মতীউর রহমান মাদানী ও তাঁর সাথীবৃন্দ। যাদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন দিল্লী জামে‘আ মিল্লিয়ার সিনিয়র সহকারী অধ্যাপক জুনায়েদ হারেছ। অতঃপর তাঁরা সবাই একত্রে  সেখানে রাতের খাবার গ্রহণ করেন। এসময় আমীরে জামা‘আত সঊদী আরবে প্রবাসীদের মাধে বিশুদ্ধ দাওয়াতের প্রচার ও প্রসারে বিশেষ ভুমিকা পালনের জন্য শায়খ মতীউর রহমানকে আন্তরিক মোবারকবাদ জানান।

৩১শে জুলাই বৃহস্পতিবার সকাল ৭-টায় আমীরে জামা‘আতের সাথে ডাঃ যাকির নায়েকের নির্ধারিত বৈঠক থাকলেও অসুস্থতার কারণে তিনি আসতে পারেননি। অতঃপর সকাল ৮-টায় মক্কার শায়খ বশীর বিন মুহাম্মাদ আল-মা‘ছূমী তাঁর সাথে সাক্ষাৎ করেন। অতঃপর সকাল ১০-টায় তিনি হোটেল ত্যাগ করেন এবং সফরসঙ্গীদের নিয়ে মদীনার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হন। বিকালে মদীনায় হোটেলে পৌঁছে হোটেল ত্বাইয়েবায় ফ্রেশ হয়ে পূর্বনির্ধারিত সাংগঠনিক সমাবেশে গমন করেন। সেখানে অনুষ্ঠান শেষে আমীরে জামা‘আত হোটেলে ফিরে আসেন। অতঃপর রাতে ‘আন্দোলন’-এর দায়িত্বশীলদের সঙ্গে বৈঠকে মিলিত হন।

১লা আগস্ট শুক্রবার তিনি মসজিদে নববীতে জুম‘আর ছালাত আদায় করেন। অতঃপর ক্বোবা মসজিদে গিয়ে আছর পড়েন। অতঃপর বি’রে ওছমান, ওহোদ ময়দান ও মদীনার বিভিন্ন ঐতিহাসিক স্থান পরিদর্শন করেন। অতঃপর মাগরিব হারামে রাসূল (ছাঃ)-এর কবর যিয়ারত সহ মসজিদে নববীর বিভিন্ন ঐতিহাসিক নিদর্শন পরিদর্শন করেন। মক্কা থেকে মদীনা হয়ে জেদ্দা পর্যন্ত বিভিন্ন ঐতিহাসিক স্থানসমূহ পরিদর্শনের ক্ষেত্রে অগ্রণী  ভূমিকা পালন করেন সঊদী প্রবাসী ও মদীনা ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে মাস্টার্সে অধ্যয়নরত এক পাকিস্তানী ছাত্র মতীউর রহমান ছগীর। ২৬ বছর যাবৎ সপরিবারে মদীনায় অবস্থানকারী ভ্রমণ পিয়াসী ও ইতিহাসমনস্ক এই যুবকটির অভিজ্ঞ পরিচালনায় ঐতিহাসিক স্থানগুলি আমীরে জামা‘আতের মানসপটে যেন নতুনভাবে উপস্থাপিত হয়।

২রা আগস্ট শনিবার বিকাল সাড়ে ৪-টায় তিনি হারাম থেকে জেদ্দার উদেশ্যে রওয়ানা হন এবং পথিমধ্যে ঐতিহাসিক বদর প্রান্তর ও রাইস সমুদ্র সৈকত পরিদর্শন করে রাত্রি ১২-টায় জেদ্দায় পৌঁছেন। অতঃপর ভোর ৫-টায় সাঊদীয়া এয়ারলাইন্সের একটি বিমানে সঊদী আরব ত্যাগ করেন এবং ৩রা আগস্ট রবিবার বাংলাদেশ সময় দুপুর ২-টায় ঢাকা বিমানবন্দরে অবতরণ করেন। অতঃপর রাত পৌনে ১২-টায় রাজশাহী মারকাযে পৌঁছে যান। ফালিল্লাহিল হাম্দ।

জেদ্দা ২৯ জুলাই, মঙ্গলবার : অদ্য বাদ মাগরিব জেদ্দার ‘আসফান’ রোডস্থ থ্রিসিসি ক্যাম্প মসজিদে ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন’ জেদ্দা শাখার উদ্যোগে অনুষ্ঠিত ‘তাফসীরুল কুরআন’ মাহফিলে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন মুহতারাম আমীরে জামা‘আত প্রফেসর ড. মুহাম্মাদ আসাদুল্লাহ আল-গালিব। তিনি সূরা ফাতিহার ৪নং আয়াতের তাফসীর পেশ করে বলেন, আল্লাহর প্রতি অটুট দাসত্ব থাকতে হবে বিশ্বাসে, স্বীকৃতিতে এবং কর্মে। এগুলির মধ্যে তারতম্য হ’লে পুরাপুরি দাসত্ব হবে না। তিনি বলেন, পবিত্র কুরআন ও ছহীহ হাদীছের আলোকে সার্বিক জীবন গড়ে তোলার মাধ্যমেই কেবল আল্লাহর যথাযথ দাসত্ব সম্ভব। ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন বাংলাদেশ’ মানুষকে সেদিকেই আহবান জানায়। জেদ্দা শাখা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি সাঈদুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সমাবেশে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য পেশ করেন শায়খ আব্দুল্লাহ আল-বাকী (দাঈ, শারক জেদ্দা ইসলামী দাওয়াহ সেন্টার) এবং সঊদীআরব শাখা ‘আন্দোলন’-এর সাংগঠনিক সম্পাদক শায়খ আব্দুল বারী (দাঈ, আল-আযীযিয়া দাওয়াহ সেন্টার, রিয়াদ) প্রমুখ। প্রায় চার শতাধিক কর্মী ও সুধীর উপস্থিতিতে সমাবেশটি খুবই প্রাণবন্ত ছিল। অনুষ্ঠানে সঞ্চালক ছিলেন ‘আসফান’ এলাকা ‘আন্দোলন’-এর সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আউয়াল।

মদীনা ৩১শে জুলাই, বৃহস্পতিবার : অদ্য বাদ মাগরিব ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন’ মদীনা শাখার উদ্যোগে মদীনার ‘হাই আল-মালিক ফাহদ’ এলাকায় আয়োজিত কর্মী ও সুধী সমাবেশে যোগদান করেন আমীরে জামা‘আত। প্রধান অতিথির ভাষণে তিনি সবাইকে অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, অহী অবতরণের এই কেন্দ্রভূমিতে আপনাদের মত ভাইদের পেয়ে আমরা অত্যন্ত আনন্দিত। বাংলাদেশে অহি-র বিধান প্রচার ও প্রতিষ্ঠার শপথ নিয়ে আমাদের কর্মীরা যেভাবে কাজ করে যাচ্ছেন, আপনারাও বিদেশের মাটিতে একই লক্ষ্যে কাজ করে যাবেন বলে আমরা আশা করি। ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন’ সমাজ সংস্কারের আন্দোলন। তাই এতে বাধা আসে বেশী। আর সেকারণ এর পুরস্কারও বেশী। এ আন্দোলনের জন্য দুনিয়ায় যত ত্যাগ করবেন, আখেরাতে তত বেশী নেকী পাবেন ইনশাআল্লাহ। কোন ভৌগলিক সীমারেখা এ দাওয়াতকে বাধাগ্রস্ত করতে পারে না। কেননা এ দাওয়াত পবিত্র কুরআন ও ছহীহ হাদীছের আলোকে আক্বীদা ও আমল সংশোধনের দাওয়াত। তাই কারাগারে আবদ্ধ রাখলেও এ দাওয়াত আবদ্ধ থাকে না। তার বাস্তব প্রমাণ আপনারাই। তিনি সকলকে জামা‘আতবদ্ধ হয়ে সুশৃংখলভাবে আন্দোলন চালিয়ে যাবার আহবান জানান।

‘আহলেহাদীছ আন্দোলন’ সঊদী আরব শাখার সভাপতি শায়খ মুশফিকুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সমাবেশে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য পেশ করেন আল-ক্বাছীম-এর আল-খাবরা দাওয়াহ সেন্টারের দাঈ শায়খ আখতার মাদানী, রিয়াদস্থ মাসিক আত-তাহরীক পাঠক ফোরামের সভাপতি মুহাম্মাদ জাহাঙ্গীর প্রমুখ। অনুষ্ঠানে সঞ্চালক ছিলেন সঊদী আরব শাখা ‘আন্দোলন’-এর সাধারণ সম্পাদক শায়খ আব্দুল হাই।

দেশব্যাপী কর্মী প্রশিক্ষণ ও রামাযানের গুরুত্ব শীর্ষক আলোচনা সভা

(বাকী অংশ)

নাগেশ্বরী, কুড়িগ্রাম-উত্তর ৪ঠা জুলাই শুক্রবার : অদ্য বাদ জুম‘আ যেলার নাগেশ্বরী থানাধীন গোপালপুর ভোটের হাট আহলেহাদীছ জামে মসজিদে এক কর্মী প্রশিক্ষণ ও রামাযানের গুরুত্ব শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মুহাম্মাদ হামীদুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম। অন্যান্যের মধ্যে প্রশিক্ষণ প্রদান করেন লালমণিরহাট যেলা ‘আন্দোলন’-এর সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মুন্তাযির রহমান।

পাঁচপীর (মাষ্টারপাড়া), কুড়িগ্রাম-দক্ষিণ ৫ই জুলাই শনিবার : অদ্য বাদ যোহর যেলার সদর থানাধীন পাঁচপীর (মাষ্টারপাড়া) আহলেহাদীছ জামে মসজিদে যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মুহাম্মাদ সিরাজুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম। অন্যান্যের মধ্যে প্রশিক্ষণ প্রদান করেন লালমণিরহাট যেলা ‘আন্দোলন’-এর সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মুন্তাযির রহমান।

বাঁকাল, সাতক্ষীরা ৮ই জুলাই মঙ্গলবার : অদ্য বাদ যোহর শহরের উপকণ্ঠে বাঁকালস্থ দারুল হাদীছ আহমাদিয়া সালাফিইয়া মিলনায়তনে যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মাওলানা আব্দুল মান্নানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় দফতর ও যুববিষয়ক সম্পাদক অধ্যাপক আমীনুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় শূরা সদস্য অধ্যাপক শেখ রফীকুল ইসলাম।

চিরিরবন্দর, দিনাজপুর-পশ্চিম ১০ই জুলাই বৃহস্পতিবার : অদ্য সকাল দশ ঘটিকা হ’তে যেলার চিরিরবন্দর থানাধীন জগন্নাথপুর খুলুপাড়া আহলেহাদীছ জামে মসজিদে এক কর্মী প্রশিক্ষণ ও রামাযানের গুরুত্ব শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপযেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মাওলানা আব্দুর রাযযাকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক ড. মুহাম্মাদ সাখাওয়াত হোসাইন। অন্যান্যের মধ্যে প্রশিক্ষণ প্রদান করেন জয়পুরহাট যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি জনাব মাহফূযুর রহমান ও স্থানীয় মাওলানা মুহাম্মাদ মুহসিন আলী।

ভবানীপুর-পাতুলী, টাঙ্গাইল ১০ই জুলাই বৃহস্পতিবার : অদ্য বাদ যোহর যেলা শহরের ভবানীপুর-পাতুলী আহলেহাদীছ জামে মসজিদে যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মাষ্টার আব্দুল ওয়াজেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম। অন্যান্যের মধ্যে প্রশিক্ষণ প্রদান করেন জামালপুর-দক্ষিণ যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি অধ্যাপক বযলুর রহমান।

পূর্ব খাসবাগ, রংপুর  ১০ই জুলাই বৃহস্পতিবার : অদ্য বাদ আছর যেলা শহরের পূর্ব খাসবাগ আহলেহাদীছ জামে মসজিদে যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মাষ্টার খায়রুল আযাদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় অর্থ সম্পাদক বাহারুল ইসলাম। অন্যান্যের মধ্যে প্রশিক্ষণ প্রদান করেন সাতক্ষীরা যেলার কলারোয়া এলাকা ‘আন্দোলন’-এর সহ-সভাপতি অধ্যাপক হাফেয মুহাম্মাদ মুহসিন।

বিরামপুর, দিনাজপুর-পূর্ব ১১ই জুলাই শুক্রবার : অদ্য বাদ আছর যেলার ঘোড়াঘাট থানাধীন রাণীগঞ্জ বাজার সংলগ্ন নূরপুর  সালাফিইয়া মাদরাসা ময়দানে এক কর্মী প্রশিক্ষণ ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মাওলানা আব্দুল ওয়াহ্হাবের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক ড. মুহাম্মাদ সাখাওয়াত হোসাইন।

মহিষখোচা, লালমণিরহাট ১১ই জুলাই শুক্রবার : অদ্য বাদ জুম‘আ যেলার আদিতমারী থানাধীন মহিষখোচা বাজার আহলেহাদীছ জামে মসজিদে যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মাওলানা শহীদুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কর্মী প্রশিক্ষণে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় অর্থ সম্পাদক বাহারুল ইসলাম। অন্যান্যের মধ্যে প্রশিক্ষণ প্রদান করেন সাতক্ষীরা যেলার কলারোয়া এলাকা ‘আন্দোলন’-এর সহ-সভাপতি অধ্যাপক হাফেয মুহাম্মাদ মুহসিন।

কোমরগ্রাম, জয়পুরহাট ১১ই জুলাই শুক্রবার : অদ্য সকাল ১০-টায় যেলার সদর থানাধীন কোমরগ্রাম আহলেহাদীছ জামে মসজিদে ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন বাংলাদেশ’ জয়পুরহাট যেলার উদ্যোগে কর্মী প্রশিক্ষণ ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি জনাব মাহফূযুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত প্রশিক্ষণে কেন্দ্রীয় মেহমান হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় শূরা সদস্য ও নাটোর যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি ড. মুহাম্মাদ আলী ও ‘সোনামণি’ পরিচালক আব্দুল হালীম বিন ইলিয়াস।

সরিষাবাড়ী, জামালপুর-দক্ষিণ ১১ই জুলাই শুক্রবার : অদ্য বাদ জুম‘আ যেলার সরিষাবাড়ী থানাধীন সেঙ্গুয়া ফাযিল মাদরাসায় ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন বাংলাদেশ’ জামালপুর-দক্ষিণ সাংগঠনিক যেলার উদ্যোগে কর্মী প্রশিক্ষণ ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। স্থানীয় ব্যক্তিত্ব জনাব আশেকল্ল­াহ একরামুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত প্রশিক্ষণে কেন্দ্রীয় মেহমান হিসাবে উপস্থিত ছিলেন জামালপুর-উত্তর যেলা ‘আন্দোলন’-এর সাধারণ সম্পাদক মাসঊদুর রহমান। অন্যান্যের মধ্যে প্রশিক্ষণ প্রদান করেন জামালপুর-দক্ষিণ যেলার সাধারণ সম্পাদক ক্বামারুয্যামান বিন আব্দুল বারী প্রমুখ।

মাদারগঞ্জ, জামালপুর-উত্তর ১২ই জুলাই শনিবার : অদ্য বাদ যোহর যেলার মাদারগঞ্জ থানাধীন বালিজুড়ী এস.এম.ফাযিল মাদরাসা মসজিদে ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন বাংলাদেশ’ জামালপুর-উত্তর সাংগঠনিক যেলার উদ্যোগে কর্মী প্রশিক্ষণ ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। যেলা ‘আন্দোলন’-এর সাধারণ সম্পাদক জনাব মাসঊদুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত প্রশিক্ষণে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম। অন্যান্যের মধ্যে প্রশিক্ষণ প্রদান করেন জামালপুর-দক্ষিণ সাংগঠনিক যেলার সভাপতি অধ্যাপক বযলুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক ক্বামারুয্যামান বিন আব্দুল বারী।

কালদিয়া, বাগেরহাট ১৩ই জুলাই রবিবার : অদ্য বাদ যোহর যেলার সদর থানাধীন কালদিয়াস্থ আল-মারকাযুল ইসলামী মাদরাসা ও ইয়াতীমখানা সংলগ্ন জামে মসজিদে যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি সরদার আশরাফ হোসাইনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কর্মী প্রশিক্ষণে কেন্দ্রীয় মেহমান হিসাবে উপস্থিত ছিলেন সাতক্ষীরা যেলা ‘আন্দোলন’-এর সহ-সভাপতি মাওলানা ফযলুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আলতাফ হোসাইন।

ত্রিশাল, ময়মনসিংহ ১৩ই জুলাই রবিবার : অদ্য বাদ আছর যেলার ত্রিশাল বাজারস্থ ইসলামিক সেন্টার সংলগ্ন আহলেহাদীছ জামে মসজিদে ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন বাংলাদেশ’ ময়মনসিংহ যেলার উদ্যোগে কর্মী প্রশিক্ষণ ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মুহাম্মাদ আব্দুল কাদের-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত প্রশিক্ষণে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি ছিলেন জামালপুর-দক্ষিণ যেলা ‘আন্দোলন’-এর সাধারণ সম্পাদক ক্বামারুয্যামান বিন আব্দুল বারী। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য পেশ করেন মুহাম্মাদ জামালুদ্দীন মাদানী।

সাভার, ঢাকা ১৪ই জুলাই সোমবার : অদ্য বাদ আছর সাভার উপযেলা ‘আন্দোলন’-এর উদ্যোগে স্থানীয় মামূন কমিউনিটি সেন্টারে  এক আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। উপযেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি জনাব আশরাফুল ইসলামের  সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক ড. মুহাম্মাদ সাখাওয়াত হোসাইন। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন যেলা ‘আন্দোলন’-এর সাধারণ সম্পাদক তাসলীম সরকার, সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম বিন হাবীব প্রমুখ দায়িত্বশীলবৃন্দ।

সোহাগদল, পিরোজপুর, ১৪ই জুলাই সোমবার : অদ্য বাদ যোহর যেলার স্বরূপকাঠি থানাধীন সোহাগদল আহলেহাদীছ জামে মসজিদে এক কর্মী প্রশিক্ষণ ও রামাযানের গুরুত্ব শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি অধ্যাপক আব্দুল হামীদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত অনুষ্ঠানে কেন্দ্রীয় মেহমান হিসাবে উপস্থিত ছিলেন সাতক্ষীরা যেলা ‘আন্দোলন’-এর সহ-সভাপতি মাওলানা ফযলুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আলতাফ হোসাইন।

মেহেন্দীগঞ্জ, বরিশাল ১৫ই জুলাই মঙ্গলবার : অদ্য বাদ যোহর যেলার মেহেন্দীগঞ্জ থানাধীন উলানিয়া বাজার আহলেহাদীছ জামে মসজিদে এক কর্মী প্রশিক্ষণ ও রামাযানের গুরুত্ব শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মাওলানা আব্দুল খালেকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত অনুষ্ঠানে কেন্দ্রীয় মেহমান হিসাবে উপস্থিত ছিলেন সাতক্ষীরা যেলা ‘আন্দোলন’-এর সহ-সভাপতি মাওলানা ফযলুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আলতাফ হোসাইন।

চুয়াডাঙ্গা ১৬ই জুলাই বুধবার : অদ্য বাদ যোহর যেলার দামুড়হুদা থানাথীন জয়রামপুর ডাক্তারপাড়া বাজারে নবনির্মিত আহলেহাদীছ জামে মসজিদে কর্মী প্রশিক্ষণ ও রামাযানের গুরুত্ব শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মুহাম্মাদ সাঈদুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় সেক্রেটারী জেনারেল অধ্যাপক মাওলানা নূরুল ইসলাম। অন্যান্যের মধ্যে প্রশিক্ষণ প্রদান করেন মেহেরপুর যেলা ‘আন্দোলন’-এর সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মাদ তারীকুয্যামান।

মণিপুর, গাযীপুর ১৬ই জুলাই বুধবার : অদ্য বাদ যোহর যেলার সদর থানাধীন মণিপুর বাজার আহলেহাদীছ জামে মসজিদে এক কর্মী প্রশিক্ষণ ও রামাযানের গুরুত্ব শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মুহাম্মাদ হাবীবুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত অনুষ্ঠানে আলোচক হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা যেলা ‘আন্দোলন’-এর সাবেক প্রচার সম্পাদক মাওলানা শামসুর রহমান আযাদী।

মণিরামপুর, যশোর ১৬ই জুলাই বুধবার : অদ্য বাদ আছর যেলার মণিরামপুর থানাধীন চন্ডিপুর আহলেহাদীছ জামে মসজিদে এক কর্মী প্রশিক্ষণ ও রামাযানের গুরুত্ব শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি ডা. আ.ন.ম বযলুর রশীদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম। অন্যান্যের মধ্যে প্রশিক্ষণ প্রদান করেন যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মাওলানা আব্দুল মান্নান ও মাওলানা আব্দুল্লাহ বিন আব্দুল হালীম।

হাটগাঙ্গোপাড়া, বাগমারা, রাজশাহী ১৬ জুলাই বুধবার : অদ্য বাদ আছর হাটগাঙ্গোপাড়া আহলেহাদীছ জামে মসজিদে পবিত্র মাহে রামাযান উপলক্ষে এক আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। রাজশাহী-দক্ষিণ যেলা ‘আন্দোলন’-এর প্রশিক্ষণ সম্পাদক মাওলানা আহমাদ আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন সোনামণি কেন্দ্রীয় পরিচালক আব্দুল হালীম বিন ইলিয়াস। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য পেশ করেন অত্র এলাকা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মাওলানা আবুল কাসেম, ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় পরিষদ সদস্য মাওলানা সুলতান মাহমূদ, এলাকা ‘যুবসংঘ’-এর সভাপতি যিল্লুর রহমান ও সারন্দী শাখা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি জনাব আবু সাঈদ প্রমুখ।

পাঁচদোনা, নরসিংদী ১৭ই জুলাই বৃহস্পতিবার : অদ্য বাদ  যোহর নরসিংদী যেলা ‘আন্দোলন’ ও ‘যুবসংঘে’র যৌথ উদ্যোগে পাঁচদোনা বাজার আহলেহাদীছ জামে মসজিদে  এক কর্মী প্রশিক্ষণ ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি কাযী আমীনুদ্দীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক ড. মুহাম্মাদ সাখাওয়াত হোসাইন। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় শূরা সদস্য ও যেলা ‘আন্দোলন’-এর প্রধান উপদেষ্টা অধ্যাপক মুহাম্মাদ জালালুদ্দীন, ঢাকা যেলা ‘আন্দোলন’-এর সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম বিন হাবীব, যেলা ‘আন্দোলন’-এর সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসাইন, প্রচার সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল-মামূন, প্রশিক্ষণ সম্পাদক ইকবাল কবীর, যেলা ‘যুবসংঘে’র সভাপতি আব্দুস সাত্তার, সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসাইন, সাহিত্য ও পাঠাগার সম্পাদক হাফেয শরীফ, যেলা ‘সোনামণি’-এর পরিচালক আব্দুল্লাহ মুহাম্মাদ ইসহাক প্রমুখ।

ডাকবাংলা, ঝিনাইদহ ১৭ই জুলাই বৃহস্পতিবার : অদ্য বাদ যোহর যেলার সদর থানাধীন ডাকবাংলা বাজার আহলেহাদীছ জামে মসজিদে এক কর্মী প্রশিক্ষণ ও রামাযানের গুরুত্ব শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মাষ্টার ইয়াকূব হোসাইনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত অনুষ্ঠানে কেন্দ্রীয় মেহমান হিসাবে উপস্থিত ছিলেন যশোর যেলা ‘আন্দোলন’-এর সাধারণ সম্পাদক মাওলানা আলতাফ হোসাইন ও যশোর যেলার কেশবপুর উপযেলা ‘আন্দোলন’-এর সহ-সভাপতি মুত্তালিব বিন ঈমান।

জলঢাকা, নীলফামারী ১৭ই জুলাই বৃহস্পতিবার : অদ্য বাদ আছর যেলার জলঢাকা থানাধীন গোলমুন্ডা বাজার আহলেহাদীছ জামে মসজিদে এক কর্মী প্রশিক্ষণ ও রামাযানের গুরুত্ব শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মাষ্টার ওছমান গণীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় অর্থ সম্পাদক বাহারুল ইসলাম। অন্যান্যের মধ্যে প্রশিক্ষণ প্রদান করেন ‘বাংলাদেশ আহলেহাদীছ যুবসংঘ’-এর কেন্দ্রীয় দফতর সম্পাদক মুহাম্মাদ আব্দুল বারী, সাতক্ষীরা যেলার কলারোয়া এলাকা ‘আন্দোলন’-এর সহ-সভাপতি অধ্যাপক হাফেয মুহাম্মাদ মুহসিন এবং ‘যুবসংঘ’ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ।

পাঁজরভাঙ্গা, নওগাঁ ১৭ই জুলাই বৃহস্পতিবার : অদ্য বাদ যোহর যেলার মান্দা থানাধীন পাঁজরভাঙ্গা আহলেহাদীছ জামে মসজিদে কর্মী প্রশিক্ষণ ও রামাযানের গুরুত্ব শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মাওলানা আব্দুস সাত্তারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত অনুষ্ঠানে কেন্দ্রীয় মেহমান হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় শূরা সদস্য ও নাটোর যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি ড. মুহাম্মাদ আলী ও জয়পুরহাট যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি জনাব মাহফূযুর রহমান।

জুমারবাড়ী, গাইবান্ধা-পূর্ব ১৭ই জুলাই বৃহস্পতিবার : অদ্য বাদ যোহর যেলার সাঘাটা থানাধীন জুমারবাড়ী আহলেহাদীছ জামে মসজিদে যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মাওলানা ফযলুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কর্মী প্রশিক্ষণে কেন্দ্রীয় মেহমান হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় শূরা সদস্য অধ্যাপক দুর্রুল হুদা ও বগুড়া যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মুহাম্মাদ আব্দুর রহীম।

গোবিন্দগঞ্জ, গাইবান্ধা-পশ্চিম ১৮ই জুলাই শুক্রবার : অদ্য বাদ জুম‘আ যেলার গোবিন্দগঞ্জ টিএন্ডটি আহলেহাদীছ জামে মসজিদে এক কর্মী প্রশিক্ষণ ও রামাযানের গুরুত্ব শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি ডা. আওনুল মা‘বূদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত অনুষ্ঠানে কেন্দ্রীয় মেহমান হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় শূরা সদস্য অধ্যাপক দুর্রুল হুদা ও বগুড়া যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মুহাম্মাদ আব্দুর রহীম।

সাবগ্রাম, বগুড়া ১৮ই জুলাই শুক্রবার : অদ্য বাদ জুম‘আ যেলা শহরের সাবগ্রাম আহলেহাদীছ জামে মসজিদে যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মুহাম্মাদ আব্দুর রহীমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কর্মী প্রশিক্ষণে কেন্দ্রীয় মেহমান হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় শূরা সদস্য ড. মুহাম্মাদ আলী ও জয়পুরহাট যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মাহফূযুর রহমান।

ফুলতলা, পঞ্চগড় ১৮ই জুলাই শুক্রবার : অদ্য বাদ আছর যেলার তেতুলিয়া থানাধীন বাংলাবান্ধা আহলেহাদীছ জামে মসজিদে যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মাওলানা আব্দুল আহাদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কর্মী প্রশিক্ষণে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় অর্থ সম্পাদক বাহারুল ইসলাম। অন্যান্যের মধ্যে প্রশিক্ষণ প্রদান করেন ‘বাংলাদেশ আহলেহাদীছ যুবসংঘ’-এর কেন্দ্রীয় দফতর সম্পাদক মুহাম্মাদ আব্দুল বারী, সাতক্ষীরা যেলার কলারোয়া এলাকা ‘আন্দোলন’-এর সহ-সভাপতি অধ্যাপক হাফেয মুহাম্মাদ মুহসিন এবং ‘যুবসংঘ’ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ।

চাঁদমারী, পাবনা ১৮ই জুলাই শুক্রবার : অদ্য বাদ জুম‘আ শহরের চাঁদমারী আহলেহাদীছ জামে মসজিদে যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মাওলানা বেলালুদ্দীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কর্মী প্রশিক্ষণে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম।

নাটোর ১৯শে জুলাই শনিবার : অদ্য বাদ আছর যেলার লালপুর থানাথীন চৌষডাঙ্গা আহলেহাদীছ জামে মসজিদে যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি ড. মুহাম্মাদ আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কর্মী প্রশিক্ষণে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম।

বুড়িচং, কুমিল্লা ১৯শে জুলাই শনিবার : অদ্য বাদ যোহর যেলার বুড়িচং উত্তর বাজার আহলেহাদীছ জামে মসজিদে যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মাওলানা ছফিউল্লাহর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কর্মী প্রশিক্ষণে কেন্দ্রীয় মেহমান হিসাবে উপস্থিত ছিলেন খুলনা যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মাওলানা জাহাঙ্গীর আলম।

পাংশা, রাজবাড়ী ১৯শে জুলাই শনিবার : অদ্য বাদ আছর যেলার পাংশা থানাধীন সত্যজিৎপুর আহলেহাদীছ জামে মসজিদে যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মাওলানা মাকবূল হোসাইনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কর্মী প্রশিক্ষণে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় দফতর ও যুববিষয়ক সম্পাদক অধ্যাপক আমীনুল ইসলাম। অন্যান্যের মধ্যে প্রশিক্ষণ প্রদান করেন রাজশাহী বাগমারা উপযেলা ‘আন্দোলন’-এর সাধারণ সম্পাদক এস. এম. সুলতান মাহমূদ।

সদরপুর, ফরিদপুর ২০শে জুলাই রবিবার : অদ্য বাদ যোহর যেলার সদরপুর থানাধীন সাড়ে সাতরশি আহলেহাদীছ জামে মসজিদে যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মুহাম্মাদ দেলোয়ার হোসাইনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কর্মী প্রশিক্ষণে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় দফতর ও যুববিষয়ক সম্পাদক অধ্যাপক আমীনুল ইসলাম। অন্যান্যের মধ্যে প্রশিক্ষণ প্রদান করেন বাগমারা উপযেলা ‘আন্দোলন’-এর সাধারণ সম্পাদক এস. এম. সুলতান মাহমূদ।

আলমডাঙ্গা, কুষ্টিয়া-পূর্ব ২৩শে জুলাই বুধবার : অদ্য বাদ যোহর যেলার আলমডাঙ্গা থানাথীন বাড়াদি আহলেহাদীছ জামে মসজিদে যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মাষ্টার হাশীমুদ্দীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কর্মী প্রশিক্ষণে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় সেক্রেটারী জেনারেল অধ্যাপক মাওলানা নূরুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় অর্থ সম্পাদক বাহারুল ইসলাম। অন্যান্যের মধ্যে প্রশিক্ষণ প্রদান করেন ‘বাংলাদেশ আহলেহাদীছ যুবসংঘ’-এর কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মুহাম্মাদ আব্দুর রশীদ আখতার।

দৌলতদপুর, কুষ্টিয়া-পশ্চিম ২৪শে জুলাই বৃহস্পতিবার : অদ্য সকাল ১০-টায় যেলার দৌলতপুর থানাধীন দৌলতখালী বাজারপাড়া আহলেহাদীছ জামে মসজিদে এক কর্মী প্রশিক্ষণ ও রামাযানের গুরুত্ব শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মুহাম্মাদ গোলাম যিল-কিবরিয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় সেক্রেটারী জেনারেল অধ্যাপক মাওলানা নূরুল ইসলাম। অন্যান্যের মধ্যে প্রশিক্ষণ প্রদান করেন মেহেরপুর যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মাওলানা মানছূরুর রহমান ও ‘যুবসংঘ’-এর কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মুহাম্মাদ আব্দুর রশীদ আখতার।

বিশ্বনাথপুর, চাঁপাই নবাবগঞ্জ ২৪শে জুলাই বুহস্পতিবার : অদ্য বাদ যোহর যেলার শিবগঞ্জ থানাধীন বিশ্বনাথপুর আহলেহাদীছ জামে মসজিদে যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মাওলানা আব্দুল্লাহর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কর্মী প্রশিক্ষণে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় দফতর ও যুববিষয়ক সম্পাদক অধ্যাপক আমীনুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘বাংলাদেশ আহলেহাদীছ যুবসংঘ’-এর কেন্দ্রীয় সভাপতি মুযাফফর বিন মুহসিন।

আহলেহাদীছ যুবসংঘ

মহিমাগঞ্জ কামিল মাদরাসা, গাইবান্ধা ৫ জুলাই শনিবার : অদ্য বেলা সাড়ে ৩-টায় মহিমাগঞ্জ কামিল মাদরাসায় ‘বাংলাদেশ আহলেহাদীছ যুবসংঘ’ মহিমাগঞ্জ আলিয়া মাদরাসা শাখার উদ্যোগে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। যেলা সভাপতি আব্দুল্লাহ আল-মামূনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত বৈঠকে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘সোনামণি’ কেন্দ্রীয় সহ-পরিচালক বযলুর রহমান। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মহিমাগঞ্জ কামিল মাদরাসার ভাইস প্রিন্সিপ্যাল মাওলানা আহমাদ আলী দেওয়ান, গাইবান্ধা-পূর্ব সাংগঠনিক যেলার সভাপতি মাওলানা মশিউর রহমান, গাইবান্ধা টি.এন্ড.টি আহলেহাদীছ জামে মসজিদের ইমাম ও গোবিন্দগঞ্জ উপযেলা ‘যুবসংঘ’-এর সহ-সভাপতি মাহবূবুর রহমান, ‘সোনামণি’ যেলা পরিচালক হাফেয ওবায়দুল্লাহ প্রমুখ।

থুপসারা, কালাই, জয়পুরহাট ২২ জুলাই, মঙ্গলবার : অদ্য বাদ আছর কালাই থানাধীন থুপসারা আহলেহাদীছ জামে মসজিদে ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন বাংলাদেশ’ ও ‘বাংলাদেশ আহলেহাদীছ যুবসংঘ’ থুপসারা শাখার উদ্যোগে এক আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। শাখা ‘যুবসংঘ’-এর সভাপতি আব্দুর রহীমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘যুবসংঘ’এর কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ইমামুদ্দীন বিন আব্দুল বাছীর। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আল-হেরা শিল্পীগোষ্ঠীর প্রধান মুহাম্মাদ শফীকুল ইসলাম, যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মাহফূযুর রহমান, যেলা ‘যুবসংঘ’-এর সভাপতি আবুল কালাম, সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হক, অর্থ সম্পাদক ফিরোজ হোসেন, প্রচার সম্পাদক মোশতাক আহমাদ সরোয়ার, যেলা সোনামণি পরিচালক মোনায়েম হোসেন, কালাই ময়েন উদ্দীন উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক আবুল হোসেন প্রমুখ।

জামালগঞ্জ, আক্কেলপুর, জয়পুরহাট ২৩ জুলাই বুধবার : অদ্য বাদ আছর আক্কেলপুর থানাধীন জামালগঞ্জের গভরপুর আহলেহাদীছ জামে মসজিদে ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন বাংলাদেশ’ ও ‘বাংলাদেশ আহলেহাদীছ যুবসংঘ’ গভরপুর শাখার উদ্যোগে এক আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। শাখা উপদেষ্টা জনাব আব্দুর রহীম মাস্টারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘যুবসংঘ’এর কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ইমামুদ্দীন বিন আব্দুল বাছীর। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আলহেরা শিল্পীগোষ্ঠীর প্রধান শফীকুল ইসলাম, যেলা ‘যুবসংঘ’-এর সভাপতি মুহম্মাদ আবুল কালাম, সহ-সভাপতি আব্দুন নূর, সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হক, অর্থ সম্পাদক ফিরোজ হোসন, যেলা সোনামণি পরিচালক মোনায়েম হোসেন প্রমুখ।

প্রবাসী সংবাদ

দাম্মাম, সঊদী আরব ২৮শে জুলাই সোমবার : অদ্য ঈদুল ফিতরের দিন বাদ এশা ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন’ দাম্মাম শাখার উদ্যোগে দাম্মাম শহরের নিকটবর্তী সমুদ্র উপকূলে এক

সুধী সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। দাম্মাম শাখা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি জনাব আব্দুল খালেকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন সঊদী আরব শাখা ‘আন্দোলন’-এর সাধারণ সম্পাদক শায়খ আব্দুল হাই। সমাবেশে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মুহাম্মাদ ফখরুল ইসলাম (কুমিল্লা), আফসারুদ্দীন (বি-বাড়িয়া), মাওলানা শহীদুল ইসলাম (বরিশাল), মোয়ায্যম হোসাইন পলাশ (ফেনী), দাম্মাম শাখার সহ-সভাপতি যহীরুদ্দীন (কিশোরগঞ্জ), সাহিত্য ও পাঠাগার সম্পাদক মুহাম্মাদ যহীরুল ইসলাম ভূঁইয়া (নরসিংদী)। অনুষ্ঠানে সঞ্চালক ছিলেন দাম্মাম শাখা ‘আন্দোলন’-এর অর্থ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল-মামুন। অতঃপর রাতের খাবার গ্রহণের মাধ্যমে সমাবেশ সমাপ্ত হয়।

সিঙ্গাপুর ২৮শে জুলাই সোমবার : অদ্য সকাল ১০-টায় ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন বাংলাদেশ’ সিংঙ্গাপুর শাখার উদ্যোগে সিংঙ্গাপুর জাতীয় সুলতান জামে মসজিদে দিন ব্যাপী তাবলীগী ইজতেমা অনুষ্ঠিত হয়। সিংঙ্গাপুর শাখা ‘আন্দোলন’-এর সাবেক সভাপতি আব্দুল হালীম (কুমিল্লা)-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত তাবলীগী ইজতেমায় দরসে কুরআন পেশ করেন শহীদুল ইসলাম (দিনাজপুর) ও দরসে হাদীছ পেশ করেন মুহাম্মাদ শামীম (নরসিংদী)। অতঃপর বিষয় ভিত্তিক আলোচনা পেশ করেন (১) শহীদুল ইসলাম (দিনাজপুর), (২) মুহাম্মাদ আব্দুল লতীফ (সাতক্ষীরা) (৩) মুহাম্মাদ রাকীবুল ইসলাম (মাগুরা) (৪) মুহাম্মাদ মাযহারুল ইসলাম (পটুয়াখালী) (৫) মোয়ায্যম হোসেন (বগুড়া) প্রমুখ। অনুষ্ঠানে সঞ্চালক ছিলেন আব্দুল মুকীত (কুষ্টিয়া)।

জেদ্দা, সঊদী আরব ১৫ আগস্ট শুক্রবার : অদ্য বাদ মাগরিব ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন বাংলাদেশ’ জেদ্দা শাখার উদ্যোগে জেদ্দার হাই আল-জামে‘আহ এলাকায় এক সূধী সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন জেদ্দা শাখা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি সাঈদুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক মীযানুর রহমানসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। সমাবেশে জনাব নিযামুদ্দীনকে সভাপতি, আবুল কালামকে সহ-সভাপতি এবং আব্দুল কাদের নাহিদকে সাধারণ সম্পাদক করে ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন’ হাই আল-জামে‘আহ এলাকা গঠন করা হয়।

আমীরে জামা‘আতের বগুড়া সফর

‘আন্দোলন’-এর বগুড়া যেলার প্রধান উপদেষ্টা আলহাজ্জ তোযাম্মেল হোসায়েন (৭৯) গত ১৩ই আগস্ট বুধবার দিবাগত রাত দেড়টায় সুস্থ অবস্থায় হঠাৎ হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে গাবতলী হাসনাপাড়া নিজ বাড়ীতে মৃত্যুবরণ করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহে রাজেঊন)। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, ৪ পুত্র ও ৩ কন্যা রেখে যান। তিনি গাবতলী পাইলট হাইস্কুলের অবসরপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক ছিলেন এবং অত্যন্ত জনপ্রিয় শিক্ষক ছিলেন। মুহতারাম আমীরে জামা‘আত ১৪ই আগস্ট বৃহস্পতিবার বাদ আছর গাবতলী হাইস্কুল ময়দানে তাঁর জানাযার ছালাতে ইমামতি করেন। প্রচুর মানুষ বিরতিহীন বৃষ্টিপাতের মধ্যেও তাঁর জানাযায় অংশগ্রহণ করেন।

আমীরে জামা‘আতের দিনাজপুর সফর

‘আন্দোলন’-এর দিনাজপুর-পশ্চিম যেলা সভাপতি জনাব ইদ্রীস আলী (৬৩) গত ২০শে আগস্ট বুধবার দিবাগত রাত সাড়ে ৩-টায় হঠাৎ হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন। (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহে রাজেঊন)। রাত ১০-টার পর্যন্ত তিনি সংগঠনের কর্মীদের নিয়ে শহরের লালবাগস্থ পাটুয়াপাড়ায় নিজ বাসভবনে বৈঠক করেন। অতঃপর সুস্থ অবস্থায় ঘুমিয়ে যান। পরে রাত ১২-টার দিকে কিছুটা অসুস্থ বোধ করলে তাঁকে রাত ২-টায় হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে ইসিজি করা অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, ৩ পুত্র ও ২ কন্যা রেখে যান। তাঁর আকস্মিক মৃত্যুতে দিনাজপুর এবং দেশব্যাপী সংগঠনের সর্বত্র শোকের ছায়া নেমে আসে। যেলার কর্মীদের মুখে মুখে একই কথা- ‘আমরা ইয়াতীম হয়ে গেলাম’। শত শত মানুষ তাঁর জানাযায় ছুটে আসে। তিনি ছিলেন সর্বজনপ্রিয় একজন সদাচারী মানুষ। ভোরে মৃত্যুসংবাদ পেয়ে আমীরে জামা‘আত সকাল ৮-টায় মারকায থেকে দিনাজপুরের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়ে যান এবং বেলা ২-টায় তাঁর জানাযার ইমামতি করেন।

জানাযায় তাঁর সফরসঙ্গী ছিলেন কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক ও মাসিক আত-তাহরীকের সম্পাদক ড. মুহাম্মাদ সাখাওয়াত হোসাইন, সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম, অর্থ সম্পাদক বাহারুল ইসলাম, মাওলানা আব্দুর রাযযাক বিন ইউসুফ, নওগাঁ যেলা সহ-সভাপতি আফযাল হোসায়েন, জয়পুরহাট যেলা সভাপতি মাহফূযুর রহমান, আল-হেরা শিল্পীগোষ্ঠী প্রধান শফীকুল ইসলাম। এতদ্ব্যতীত পৃথক গাড়ী নিয়ে আসেন বগুড়া ও দিনাজপুর-পূর্ব যেলা নেতৃবৃন্দ এবং নীলফামারী, লালমণিরহাট, ঠাকুরগাঁ ও অন্যান্য যেলা ‘আন্দোলন’ ও ‘যুবসংঘে’র কর্মীবৃন্দ।

অতঃপর আমীরে জামা‘আত সেখান থেকে ফিরে এসে হরিহরা এহইয়াউস সুন্নাহ মাদরাসা পরিদর্শন করেন এবং কমিটি, শিক্ষকবৃন্দ ও ছাত্রদের সঙ্গে মিলিত হন। তিনি মাদরাসার উন্নতির জন্য দো‘আ করেন। অতঃপর তিনি রেল স্টেশন সংলগ্ন আহলেহাদীছ জামে মসজিদে আছরের ছালাত আদায় করেন এবং বাদ আছর কমিটি ও মুছল্লীদের উদ্দেশ্যে ভাষণ দেন। তিনি নব নির্মিতব্য মসজিদে নিজে দান করেন ও সকলকে উদ্বুদ্ধ করেন। ফলে সকলে সভাপতির নিকটে নগদ দান করেন। আসার পথে তিনি বিরামপুর আহলেহাদীছ জামে মসজিদে মাগরিব পড়েন। অতঃপর জয়পুরহাটে রাতের খাবার খেয়ে রাত ১২-টায় রাজশাহী পৌঁছেন। 

[আমরা মাইয়েতগণের রূহের মাগফিরাত কামনা করছি এবং তাঁদের শোকসন্তপ্ত পরিবারবর্গের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করছি।-সম্পাদক]