কবিতা


হক্বের দাওয়াত
মুহাম্মাদ আব্দুল ওয়াকীল
নাড়াবাড়ী হাট, বিরল, দিনাজপুর।
কোথায় পাবো হক্বের দাওয়াত আজ
অসংখ্য মতবাদে বিধ্বস্ত জাতি, বিপর্যস্ত সমাজ।
চারিদিকে শুধু শিরক-বিদ‘আতের কুহেলিকা,
এরই মাঝে হক্বের দাওয়াত
অপলক দৃষ্টিতে চেয়ে থাকা।
নতুন প্রাণে উজ্জীবিত হবে জাতি
আল-হেরার আলোয় জ্যোতির্ময়;
কুয়াশা কেটে হবে নতুন সূর্যোদয়।
বাতিলের তান্ডবে বিশ্বজুড়ে অসংখ্য মতবাদ
ধর্মের নামে নিত্য-নতুন পথে ইবলীসের আবির্ভাব।
লোভ-লালসা, প্রলোভনে ত্বাগূতের আহবান,
সস্তা পথে জনপ্রিয় হ’তে সেদিকের জয়গান।
অহি-র পথে হক্বের দাওয়াত
কণ্টকাকীর্ণ রাস্তায় বাতিলের সাথে হবে মুলাকাত।
তবুও থাকতে অটল, অটুট রাখতে তাওহীদি চেতনা,
অহি ভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠাই মুমিনের বাসনা।
আক্বীদার সংশোধনে, নব্য জাহেলিয়াতের হবে অবসান,
হক্বের দাওয়াত থাকবে সদা হয়ে চির অম্লান।

সোনালী সকাল হাসে
আব্দুস সোবহান
পাংশা বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ, রাজবাড়ী।
সোনালী সকাল হাসে শূন্য রবিকর
বিকশি পুষ্প পুলক রূপসী আবীর;
মৃদু সমীরণে ভাসে সোনালী শিশির
শুষ্কতায় ঝরে যায় পল্লব মর্মর।
ঘন কুয়াশায় ঢাকা মেঘেরা অপার
পাখি ডাকা রাঙা রোদ শীতল সমীর;
ভ্রমরের গুঞ্জরণে সুর করে ভীড়
নদীতীরে মনোবর সোনালী দু’ধার।
লুকোচুরি খেলা করে বলাকার ঝাঁক
রবিকর হেসে করে নিবিড় সোহাগ;
সোনালী নোলক পেয়ে ফুলেরা অবাক
ফুলকলি ফুটে উঠে ফুলের পরাগ।
সোনালী সকাল হাসে অনন্তঃ নির্বাক
দুর্বা কোমল প্রকাশে মনোহর রাগ;
সবই সৃজিলে প্রভু করে মনোহর
গুণগান করি তাই কেবল তোমার।

ক্ষমা করে দাও প্রভু তুমি
এফ.এম. নাছরুল্লাহ হায়দারী
কাঠিগ্রাম, কোটালীপাড়া, গোপালগঞ্জ।
বৃথাই জনম কাটিয়ে দিলাম
হেলায় হারিয়ে সময়,
ভক্তি করে জীবনে প্রভু
ডাকতে পারিনি তোমায়।
ভোগ-বিলাসে কাটিয়েছি জীবন
নিজের ইচ্ছা মত,
দিনে দিনে পাপের বোঝা
ভারি করেছি কত?
মুসলিম ঘরে জন্ম নিয়েও
হ’তে পারিনি মুসলমান,
নভেল-নাটক পড়েছি কত
পড়তে পারিনি পাক কুরআন।
সংস্কৃতির নামে অপসংস্কৃতি দিয়ে
সাজিয়েছি রঙমহল,
পাপ করেছি লভিছি অভিশাপ
করতে পারিনি নেক আমল।
তুমি বিনে কোন উপাস্য নাই
ইহকাল-পরকালে
মুক্তি পেতে পারি হাশরে
তুমি তরিয়ে নিলে।
তোমার রাসূলের তরীকায় চালাও
সব ভেদাভেদ ভুলে।
তোমার কাছে মোর এ ফরিয়াদ,
রোজ হাশরে পার করিও
তোমার কঠিন পুলছিরাত।
ক্ষমা করে দাও প্রভু তুমি
এই অসহায় বান্দারে,
শেষ সময়ে দেখাও আলো
ঠেলে দিও না গভীর অাঁধারে।

বড় দল
আবুল কাশেম
গোভীপুর, মেহেরপুর।
সত্য করে বলরে তোরা
ইনছাফ করে বল,
ইসলাম নিয়ে ভাগাভাগী
কোনটা আসল দল?
দলাদলির নাইকো ভিত্তি
আমল হবে সার,
কুরআন-হাদীছ জেনে শুনে
সঠিক আমল কর।
একটি দল মুক্তি পাবে
সেটাই রাসূলের দল,
পীর-বুযরগো গাউছ-কুতুব
যাবে রসাতল।
হিসাব-নিকাশ হবে একদিন
মীযানের পাল্লায়,
বাহাত্তর দল জাহান্নামী
করছ দলের বড়াই?
দলাদলি ভুলে গিয়ে
আমল কর খাঁটি,
সব ক্ষমতা ফুরিয়ে যাবে
সার হবে মাটি।
এসো ভাই সবে মিলে
করি দ্বীনের কাম
আহলেহাদীছ একটি দল
নেই কোন উপনাম।

***