সোনামণিদের পাতা

গত সংখ্যার সাধারণ জ্ঞান (ঈমান ও আক্বীদা বিষয়ক)-এর সঠিক উত্তর

১. মূসা (আঃ)-কে। যালেম বাদশাহ ফেরাঊনের কবল থেকে রক্ষার জন্য।

২. মূসা (আঃ)।            ৩. তূর পাহাড়ে।

৪. মিসরের রাণীর অন্যায় আবদার প্রত্যাখ্যান করার কারণে।

৫. ইউসুফ (আঃ)-এর। তাঁর পিতা ইয়াকূব, দাদা ইসহাক (আঃ) ও পরদাদা ইবরাহীম (আঃ)।

গত সংখ্যার মেধা পরীক্ষা (বাংলাদেশ বিষয়ক)-এর সঠিক উত্তর

১. শামসুদ্দীন মুহাম্মাদ ছিদ্দীকী।     ২. বিবি তাহেরুন নেসা।

৩. লায়লা ছামাদ।       ৪. বাংলা প্রেস (প্রতিষ্ঠাতা সুন্দর মিত্র)।

৫. কাসিম বাজারে।      ৬. মাইকেল মধুসূদন দত্ত।

৭. মীর মোশাররফ হোসেন।

চলতি সংখ্যার সাধারণ জ্ঞান (ইসলাম)

১. কোন দিনকে আশূরার বলে?

২. মাহে রামাযানের পর সর্বোত্তম নফল ছিয়াম কোনটি?

৩. আশূরার ছিয়ামের ফযীলত কি?

৪. আশূরার ছিয়ামের নিয়ত কি হবে?

৫. আশূরার ছিয়াম কয়টি রাখা সুন্নাত?

সংগ্রহে : মুহাম্মাদ ইবরাহীম খলীল

আল-মারকাযুল ইসলামী আস-সালাফী, নওদাপাড়া, রাজশাহী।

চলতি সংখ্যার সাধারণ জ্ঞান (বাংলা সাহিত্য)

১. কোন ছাহাবীকে রাসূল (ছাঃ) গোপন বিষয় জানাতেন?

২. কোন ছাহাবী নবী (ছাঃ)-এর ওহী লিখক ছিলেন এবং আত্মীয়তার দিক থেকে তার মালিক ছিলেন?

৩. রাসূলুল্লাহ (ছাঃ) ৬৩ বয়সে মৃত্যুবরণ করেন। ছাহাবীদের মধ্যে কে কে এই বয়সে মৃত্যু বরণ করেছিলেন?

৪. উম্মতে মুহাম্মাদীর মধ্যে সব চাইতে করুণাশীল ব্যক্তি কে ছিলেন?

৫. ফেরেশতাগণ কোন ছাহাবীর গোসল দিয়ে ছিলেন?

সংগ্রহে : ইবরাহীম খলীল

নওদাপাড়া, মাদরাসা, রাজশাহী।

সোনামণি কেন্দ্রীয় সম্মেলন ২০১৫

নওদাপাড়া, রাজশাহী ১১ই সেপ্টেম্বর শুক্রবার : অদ্য সকাল ৯-টায় রাজশাহী মহানগরীর নওদাপাড়াস্থ আল-মারকাযুল ইসলামী আস-সালাফী কমপ্লেক্সের পূর্ব পার্শ্বস্থ ময়দানে ‘সোনামণি কেন্দ্রীয় সম্মেলন ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান ২০১৫’ অনুষ্ঠিত হয়। ‘সোনামণি’ সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান পৃষ্ঠপোষক ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন বাংলাদেশ’-এর মুহতারাম আমীরে জামা‘আত প্রফেসর ড. মুহাম্মাদ আসাদুল্লাহ আল-গালিবের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন গাইবান্ধা যেলা ‘আন্দোলন’-এর প্রধান উপদেষ্টা, অবসরপ্রাপ্ত বি.সি.এস (সমবায়) কর্মকর্তা জনাব মুহাম্মাদ নূরুল ইসলাম প্রধান (৭৯)। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী যেলা শিশু একাডেমীর শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা মুহাম্মাদ মোশাররফ হোসাইন প্রধান ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় চিকিৎসাকেন্দ্রের উপ-প্রধান চিকিৎসক ডাঃ মুহাম্মাদ হেলালুদ্দীন।

সভাপতির ভাষণে মুহতারাম আমীরে জামা‘আত বলেন, স্রেফ সহযোগী সংগঠন হিসাবে নয়, বরং শিশু-কিশোরদের পরকালে মুক্তির পথ দেখানোর উদ্দেশ্যেই আমরা ‘সোনামণি’ সংগঠন করেছি। কেননা আমাদের সন্তান জাহান্নামের আগুনে জ্বলতে থাকুক, এটা আমরা চাই না।

প্রধান অতিথি স্বীয় বক্তব্যে সংগঠনের উদ্যোগে শিশুদের গড়ে তোলার এরূপ সুন্দর উদ্যোগের ভূয়সী প্রশংসা করেন এবং এ বিষয়ে সোনামণি সহ অবিভাবকদের এগিয়ে আসার জন্য আহবান জানান। তিনি সোনামণিদের উদ্দেশ্যে স্বরচিত একটি কবিতা আবৃত্তি করেন (কবিতার পাতা দ্রঃ)।

সম্মেলনে উদ্বোধনী ভাষণ প্রদান করেন ‘সোনামণি’র কেন্দ্রীয় পরিচালক আব্দুল হালীম বিন ইলিয়াস। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় যুববিষয়ক সম্পাদক অধ্যাপক মুহাম্মাদ আমীনুল ইসলাম, কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক ও মাসিক আত-তাহরীক সম্পাদক ড. মুহাম্মাদ সাখাওয়াত হোসাইন, ‘সোনামণি’র পৃষ্ঠপোষক ও ‘যুবসংঘ’-এর কেন্দ্রীয় সভাপতি আব্দুর রশীদ আখতার, আল-মারকাযুল ইসলামী আস-সালাফী, নওদাপাড়ার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মাওলানা আব্দুল খালেক সালাফী, ‘সোনামণি’ সংগঠনের প্রথম পরিচালক মুহাম্মাদ আযীযুর রহমান, ‘সোনামণি’ রাজশাহী-উত্তর যেলা পরিচালক ডাঃ মুহাম্মাদ মুহসিন, জয়পুরহাট যেলা পরিচালক মুহাম্মাদ আব্দুল মুন‘ইম, কুষ্টিয়া-পূর্ব যেলা পরিচালক যিয়াউর রহমান প্রমুখ। সম্মেলনে ‘আন্দোলন’, ‘যুবসংঘ’ ও ‘সোনামণি’র বিভিনণ যেলা দায়িত্বশীলগণ ছাড়াও ১৩টি যেলার প্রায় সাত শতাধিক সোনামণি অংশগ্রহণ করে। সম্মেলনে সঞ্চালকের দায়িত্ব পালন করেন ‘সোনামণি’ মারকায এলাকার ‘হাসনাহেনা’ শাখার পরিচালক মুহাম্মাদ শহীদুল্লাহ।

সম্মেলনে কেন্দ্রীয় সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা ২০১৫-এর বিজয়ীদের হাতে মুহতারাম আমীরে জামা‘আত, প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথিবৃন্দ ক্রেস্ট ও পুরস্কার তুলে দেন। উল্লেখ্য যে, কেন্দ্রীয় পর্যায়ে প্রতিযোগিতায় ১০০ জন বালক ও ৬০ জন বালিকা সহ মোট ১৬০ জন সোনামণি অংশগ্রহণ করে। তন্মধ্যে ৩৩ জন বিজয়ী হয়। বিজয়ীদের বিশেষ পুরস্কার ও অন্যান্যদের উৎসাহ পুরস্কার দেওয়া হয়। নিম্নে বিজয়ীদের নাম উল্লেখ করা হল :

১. হিফযুল কুরআন (মাখরাজ সহ) ও হিফযুল হাদীছ (অর্থসহ) :

বালক গ্রুপ : ১ম : নো‘মান (নাটোর), ২য় : ওমর ফারূক মুন্সী (কুমিল্লা), ৩য় : আল-আমীন শেখ (বাগেরহাট)।

বালিকা গ্রুপ : ১ম : হাফছা (বগুড়া), ২য় : তাসনীম তাবাসসুম  (মেহেরপুর), ৩য় : সুমাইয়া (গাইবান্ধা)।

২. আক্বীদা ও দো‘আ :

বালক গ্রুপ : ১ম : আব্দুল্লাহ আল-মামূন (রাজশাহী), ২য় : ওমর ফারূক মুন্সী (কুমিল্লা), ৩য় : শাকিল হাসান (বগুড়া)।

বালিকা গ্রুপ : ১ম : তাসনীম তাবাসসুম (মেহেরপুর), ২য় : তানযীলা (রাজশাহী), ৩য় : কুলছূম (মেহেরপুর)।

৩. সাধারণ জ্ঞান :

বালক গ্রুপ : ১ম : আবীর মুহাম্মাদ আরাফাত (বগুড়া), ২য় : আব্দুল্লাহ (বগুড়া), ৩য় : ফয়ছাল হোসাইন (জয়পুরহাট)।

বালিকা গ্রুপ : ১ম : সুমী কায়ছার (রাজশাহী), ২য় : উম্মে হাবীবা (গাযীপুর), ৩য় : কানীয রুখসানা (রাজশাহী)।

৪. জাগরণী :

বালক গ্রুপ : ১ম : আব্দুল হাসীব (গাইবান্ধা), ২য় : মনীরুল ইসলাম (জামালপুর), ৩য় : কবীর হোসাইন (গাইবান্ধা)।

বালিকা গ্রুপ : ১ম : তাসনীম (মেহেরপুর), ২য় : শরীফা (বগুড়া), ৩য় : মুসলিমা (গাইবান্ধা)।

৫. হস্তাক্ষর :

বালক গ্রুপ : ১ম : আব্দুল্লাহ আল-জাবির (রাজশাহী), ২য় : সাজ্জাদ হোসাইন (নাটোর), ৩য় : আব্দুর রহমান (বগুড়া)।

বালিকা গ্রুপ : ১ম : জেসমিন (বগুড়া), ২য় : সাদিয়া (দিনাজপুর), ৩য় : তাসনীম (মেহেরপুর)।

৬. আবৃত্তি (হাদীছের গল্প) :

বালক গ্রুপ : ১ম : কাওছার বিন আকরাম (রাজশাহী), ২য় : রায়হানুদ্দীন (দিনাজপুর), ৩য় : রাকীবুল হাসান শামীম (বগুড়া)।

৭. পরিচালকদের রচনা প্রতিযোগিতা :

১ম : আসাদুল্লাহ আল-গালিব (কুষ্টিয়া), ২য় : আনোয়ার শরীফ (রাজশাহী), ৩য় : আব্দুল কাদের (চাঁপাই নবাবগঞ্জ)।