কবিতা

তাহরীক তোমার নাম

মুহাম্মাদ মাযহারুল আবেদীন

সম্বলপুর, মালদহ, পশ্চিমবঙ্গ, ভারত।

তাহরীক যে তোমার নাম

সাহসী তুমি বলিষ্ঠ তুমি,

বীর-বিক্রমে চল সম্মুখপানে

তোমার সাথে সদা রয়েছি আমি।

অহি-র অভ্রান্ত জ্ঞান দিয়ে

উপড়ে ফেল ফিরকাবাজী,

তবেই হবেন তোমার প্রতি

সবার স্রষ্টা আল্লাহ রাযী।

হক্বের পথ সরল পথ

ফিরক্বাবাজী পাপ যে বটে,

শুনলে এটা আলেম কিছু

খিঁচিয়ে দাঁত বেজায় চটে।

শিরককারী বিদ‘আতকারী

তোমায় দেখে ভীষণ ডরে,

দলীল খুঁজে বাঁচাতে মুখ

কৌশল অাঁটে লুকিয়ে ঘরে।

বিদ‘আত নাকি দু’রকমের

সাইয়েয়াহ ও হাসানা বলে,

এমনি করে গলদ কথা

ওদের দ্বারা ভালই চলে।

বিদ‘আত সবই ভ্রষ্টতা হায়

এর মাঝে কোন কল্যাণ নেই

মানলে এটা যাবে জাহান্নামে

হাদীছে তা দেখতে পাই।

ভারতবাসী হ’লেও আমি

তোমায় পড়ি খুঁটিয়ে ভাই

তোমার মধ্যে ছহীহ ছাড়া

জালের কোন নিশানা নাই।

আত-তাহরীক

মুহাম্মাদ জাফরুল্লাহ সরদার

বামনডাঙ্গা, রূপসা, খুলনা।

অনেক রকম পত্র-পত্রিকা বাজারে দেখি ভাই

আত-তাহরীক সবার সেরা তার তুলনা নাই।

মাসিক আত-তাহরীক পড়ে আমল করবেন যারা

নিঃসন্দেহে রাসূল (ছাঃ)-এর পথেই রয়েছে তারা।

তাই সকলকে দাওয়াত দিচ্ছি আত-তাহরীক পড়তে

বাতিল সব ছেড়ে দিয়ে জান্নাতী জীবন গড়তে।

পরকালে মুক্তি পেতে তাহরীক পড় ভাই

এমন সুন্দর পত্রিকা আমি কভু দেখি নাই।

তাহরীক পাঠক সবার কাছে এই দো‘আ চাই

অধম আমি জান্নাতে যেন একটু স্থান পাই।

ওহে প্রভু! পূর্ণ কর অধমের এই আশা,

আত-তাহরীকের সঙ্গে রেখ মোর সদা ভালবাসা।

আত-তাহরীক প্রকাশে সময়-শ্রম দিচ্ছেন যারা

নাজাত যেন পায় হে প্রভু! পরকালে তারা।

হে আত-তাহরীক!

জোবায়ের আহমাদ

রোহিলা, রূপগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ।

হক্বের অতন্দ্র প্রহরী হে আত-তাহরীক!

তোমার সুরভী ছড়িয়ে পড়ুক দিগ্বিদিক।

সৌরভে বিমোহিত কর বিশ্ব জগৎ

তোমার পরশে হোক মানুষ পুণ্যময় মহৎ।

দূর কর যত জঞ্জাল যত অমানিশা

দাও মানুষকে সঠিক পথের দিশা।

তোমার আলোকে হোক আলোকিত সকল মানবপ্রাণ

আসুক ভূলোকে নবজাগরণ হোক নব উত্থান।

দূর হোক যত ফিরক্বাবাজী যত ভেদ-ব্যবধান

এক হয়ে যাক কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে বিশ্বের সব মুসলমান।

আত-তাহরীক

আব্দুল্লাহ আল-মা‘রূফ

নওদাপাড়া মাদরাসা, রাজশাহী।

আত-তাহরীক তুমি আমার মনে

জাগিয়েছ যে সাড়া

তোমায় পেয়ে পণ যে আমার

সঠিক পথটি ধরা।

তুমি যে জ্ঞানের সুপ্ত ভান্ডার

পথহারাদের সাথী,

হক্ব-বাতিলকে পৃথক করতে

অাঁধারে জ্বালাও বাতি।

তোমায় পাঠে বিকশিত হয়

পাঠকের সুপ্ত মেধা,

কুরআন-সুন্নাহর জ্ঞানে ভরা

তোমার প্রতিটি পাতা।

ভ্রান্তির বেড়াজাল ছিন্ন করে

বিদ‘আতী আখড়া চূর্ণ করে

শিরকী আক্বীদা টুটিয়ে দিয়ে

তোমার পদচারণ নির্ভীক,

তুমি সদা ন্যায়ে অটল

সুনাম তোমার দিগ্বিদিক।

প্রিয় আত-তাহরীক

শাহীদা

একলারামপুর, তিতাস, কুমিল্লা।

হে আত-তাহরীক! তুমি প্রিয় আমার

তোমার মাঝে খুঁজে পাই বিরাট জ্ঞানের পাহাড়।

হে আত-তাহরীক! তুমিই ভালবাসা

প্রতি মাসের প্রথমে তুমিই শুধু আমার আশা।

হে আত-তাহরীক! তোমায় আমি চাই,

তোমার মাঝে সঠিক জ্ঞানের আলো খুঁজে পাই।

হে আত-তাহরীক! তুমি আমার জান

তোমা হ’তে জ্ঞান নিয়ে বাঁচাই আমার প্রাণ।

হে আত-তাহরীক! বন্ধু আমার তুমি

হিরা, মানিক, পান্নার চেয়েও অনেক বেশি দামী।

হে আত-তাহরীক! তোমার আলোয় চলব

তোমার সঠিক জ্ঞানের আলোয় ছহীহ জীবন গড়ব।