কবিতা

 

রবের গুণগান

এফ.এম. নাছরুল্লাহ

কাঠিগ্রাম, কোটালীপাড়া, গোপালগঞ্জ।

প্রভাতী পাখি খুলেছে অাঁখি

গায় রবের গুণগান

মসজিদের ঐ মিনার চূড়ায়

ভেসে আসে কার আযান?

মুয়াযযিনের মধুর আযানে

মুমিনের ঐ কর্ণপানে

ফুল পাপীয়ার ফুলকাননে

মুক্ত হাওয়ায় মুক্ত মনে

রবের গুণগান।

মুয়াযযিনের মধুর আযান

মুমিন শুনতে পান।

আল্লাহ তুমি শ্রেষ্ঠ মহান

সৃষ্টি করলে বিশ্ব জাহান

সকাল-সাঁঝে তোমার নামে

পড়ি আল-কুরআন।

চারিদিকে আলোর জ্যোতি

ভোর বিহনে উঠছে ফুটি,

জেগেছে তাই বিশ্ব মানব

সফল করতে দো-জাহান।

সুর মিতালী চারিদিকে

সিক্ত মন-প্রাণ,

আল্লাহ তোমার অবুঝ বান্দা

গাইছে তোমারই গুণগান।

নওজোয়ানের ডাক

আমীরুল ইসলাম মাষ্টার

ভায়া লক্ষ্মীপুর, চারঘাট, রাজশাহী।

আয়রে তোরা আয় ছুটে

দল বেঁধে আয় সব জুটে

মুসলিম নওজোয়ান।

বেদ্বীন-কাফির জোট বেঁধেছে

মিটাইতে দ্বীন ইসলাম\

আল্লাহর সেনা মুসলিম জাতি

নেইকো মোদের কোন ভীতি

জিহাদ মাঝে রয়েছে ঐ

জান্নাতী আঞ্জাম\

বসে বসে ভাবছে মিছে

বেদ্বীন-কাফির জাতি

ফুৎকারেতে নিভিয়ে দিবে

দ্বীন ইসলামের বাতি।

হবে না তা কোন মতে

আল্লাহ মোদের আছেন সাথে

কাফিরের দল ধ্বংস হবে

যাবে জাহান্নাম\

শহীদের ঐ ঈদগাহে আজ

ভীড় জমেছে ভারী

তাই তাকবীরের ঐ উঠছে আওয়াজ

গগণ বিদারী\

এক সাথে আজ ঝাঁপিয়ে পড়

তাগূতী রাজ ধ্বংস কর

দুনিয়াতে ফের কায়েম কর

ইলাহী আহকাম\

দুর্নীতি

আব্দুল্লাহ আল-মাহমূদ

কারমাইকেল কলেজ, রংপুর।

দুর্নীতিতে দেশটা মোদের সব গিয়েছে ভরে

কোটি টাকার বিছানায় নেতা ঘুমায় আরাম করে।

নষ্ট করল স্বাধীনতার উজ্জ্বল ইতিহাস

গরীব-দুঃখীর টাকা মেরে করছে সর্বনাশ।

গায়ের পোশাক দেখে তাদের ভদ্র মনে হয়

ভিতরের ঐ পশু রূপটা বোঝা বড় দায়।

সমাজের ভিতরে দেখি তারাই হয় নেতা

টাকা দিয়ে স্তব্ধ করে আইনের ক্ষমতা।

সত্যটাকে গোপন করে মিথ্যার পক্ষে দেয় রায়

টাকার জোরে সবি যে হয় এই বাংলায়।

এদের দুর্নীতির ধারা দেখলে মনে হয়

বনের পশু ভালো আছে এরা ভালো নয়।

মানুষ নামের মুখোশ পরে এদের বসবাস

সৎ লোককে নির্যাতন করছে বার মাস।

এদের জন্য নষ্ট হচ্ছে এ দেশের পানি-বায়ু

ভাবছি কবে ফুরিয়ে যাবে মোদের জীবনের আয়ু।

স্বাধীনতাকামী নারী

জামীলা

মহিলা সালাফিইয়া মাদরাসা

নওদাপাড়া, রাজশাহী।

স্বাধীনতা মানে নারী-পুরুষের সমান অধিকার,

স্বাধীনতা মানে সমাজে নারীরা বর্বরতার শিকার!

স্বাধীনতা মানে নারীদের আজ পুরুষের বেশে চলা,

স্বাধীনতা মানে নারী ও পুরুষ নির্জনে কথা বলা।

স্বাধীনতা মানে নারীরাই হয় এদেশের সরকার,

স্বাধীনতা মানে নারীর ঘরে বসে থাকার নেই দরকার।

স্বাধীনতা মানে রাজপথে মিছিল করে নারীর মর্যাদা চাওয়া,

স্বাধীনতা মানে নগ্ন পোশাকে রাস্তায় হেঁটে যাওয়া।

স্বাধীনতা মানে অধিক হারে ইভটিজিং ও নির্যাতন,

স্বাধীনতা মানে নারী সমাজের গভীর অধঃপতন।

স্বাধীনতা মানে নারী জীবনে কলঙ্কের কালি লেপন,

স্বাধীনতা মানে তথাকথিত আধুনিক সমাজ গড়ার আমন্ত্রণ।

বাস্তবে এটাই কি নারীর সত্যিকার স্বাধীনতা?

নাকি স্বাধীনতার নামে ইবলীসের অধীনতা?

***

 

***