সংগঠন সংবাদ

যেলা সম্মেলন

রাজশাহী-পূর্ব

আশূরা চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে নিখাদ ইসলামী সমাজ কায়েমে ব্রতী হউন

-মুহতারাম আমীরে জামা‘আত

রাজশাহী ২৪শে অক্টোবর শনিবার : অদ্য বাদ আছর ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন বাংলাদেশ’ রাজশাহী-পূর্ব সাংগঠনিক যেলার উদ্যোগে যেলার চারঘাট থানাধীন বাদুড়িয়া উচ্চ বিদ্যালয় ময়দানে অনুষ্ঠিত যেলা সম্মেলনে প্রধান অতিথির ভাষণে মুহতারাম আমীরে জামা‘আত প্রফেসর ড. মুহাম্মাদ আসাদুল্লাহ আল-গালিব জনগণের প্রতি উপরোক্ত আহবান জানান। তিনি বলেন, মানবতার শত্রু ফেরাঊন ও তার বাহিনী আল্লাহর হুকুমে সাগরে ডুবে মরা এবং নবী মূসা ও তাঁর নিরীহ অনুসারীদের মুক্তির দিনটি ছিল ১০ই মুহাররম। সে উপলক্ষে আল্লাহর শুকরিয়া জানিয়ে মূসা (আঃ) আশূরার ছিয়াম রাখতেন। এর সাথে শাহাদাতে হুসায়েন-এর কোন সম্পর্ক নেই কেবল ঘটনা দু’টির তারিখ একই দিন হওয়া ছাড়া। মূসার চেতনা ছিল কুফরের বিরুদ্ধে তাওহীদের চেতনা। অথচ ইয়াযীদ ও হুসায়েন ছিলেন একই তাওহীদী চেতনার অনুসারী। অতএব নাজাতে মূসা ও শাহাদাতে হুসায়েনকে একত্রে গুলিয়ে ফেলে রাজনৈতিক ফায়েদা হাছিল করা ঠিক নয়। তিনি দেশের সরকার ও জনগণকে নির্ভেজাল তাওহীদী আক্বীদায় উদ্বুদ্ধ হয়ে শান্তিময় সমাজ গড়ে তোলার আহবান জানান।

যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি ডাঃ ইদরীস আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক ড. মুহাম্মাদ সাখাওয়াত হোসাইন, ‘যুবসংঘে’র সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি মুযাফ্ফর বিন মুহসিন, আল-মারকাযুল ইসলামী আস-সালাফী নওদাপাড়ার শিক্ষক মাওলানা আব্দুর রাযযাক বিন ইউসুফ, যেলা ‘আন্দোলন’-এর সহ-সভাপতি মুহাম্মাদ আইয়ূব আলী সরকার, যেলা ‘যুবসংঘে’র সভাপতি আব্দুর রহীম, জামিরা এলাকা ‘যুবসংঘে’র সভাপতি আবূ সাঈদ প্রমুখ।

আমীরে জামা‘আতের চট্টগ্রাম, কক্সবাজার ও টাঙ্গাইল সফর

চট্টগ্রাম, কক্সবাজার ও টাঙ্গাইলে সুধী সমাবেশ ও যেলা সম্মেলন সমূহে যোগদানের উদ্দেশ্যে মুহতারাম আমীরে জামা‘আত প্রফেসর ড. মুহাম্মাদ আসাদুল্লাহ আল-গালিব গত ২৯শে অক্টোবর বৃহস্পতিবার বিকালের কোচে ঢাকায় অতঃপর পরদিন সকাল ৮-টার ফ্লাইটে ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম পৌঁছেন। চট্টগ্রাম বিমান বন্দরে তাঁকে অভ্যর্থনা জানান যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মুহাম্মাদ শামীম আহসান, সহ-সভাপতি আব্দুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক শেখ সাদী সহ যেলা ‘আন্দোলন’ ও ‘যুবসংঘ’-এর অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। ঢাকা থেকে আমীরে জামা‘আতের সফরসঙ্গী হন লালমাটিয়া হাউজিং সোসাইটি কলেজের প্রভাষক মুহাম্মাদ আশরাফুল ইসলাম। চট্টগ্রাম পৌঁছে তিনি উত্তর পতেঙ্গাস্থ জনাব আব্দুর রহমানের বাড়ীতে আতিথেয়তা গ্রহণ করেন।

জুম‘আর খুৎবা : দেশের বাণিজ্যিক রাজধানী, সাগর তীরবর্তী ঐতিহ্যবাহী নগরী চট্টগ্রামের পতেঙ্গা থানাধীন ষ্টীল মিল সংলগ্ন হোসেন আহমাদ পাড়ায় নব প্রতিষ্ঠিত এবং ‘ইসলামিক কমপ্লেক্স’ রাজশাহীর অধীনে পরিচালিত ‘বায়তুর রহমান আহলেহাদীছ জামে মসজিদ কমপ্লেক্স’-য়ে মুহতারাম আমীরে জামা‘আত পূর্ব নির্ধারিত কর্মসূচী অনুযায়ী জুম‘আর খুৎবা প্রদান করেন। সমবেত মুছল্লীদের উদ্দেশ্যে প্রদত্ত খুৎবায় তিনি বলেন, জ্ঞান সম্পন্ন প্রাণী হিসাবে মানুষের মধ্যে পারস্পরিক মতভেদ থাকবে এটাই স্বাভাবিক। সেটি দূরীকরণের একটি পথই মাত্র রয়েছে আল্লাহর বিধানের সামনে মাথা নত করা। যারা সেটা করেন তারাই ‘মুসলিম’। আর আল্লাহর বিধান সমূহ রয়েছে পবিত্র কুরআনে ও ছহীহ হাদীছ সমূহে। অতএব দুনিয়ায় শান্তি ও পরকালে মুক্তি চাইলে মানুষকে কুরআন ও হাদীছের অনুসারী হ’তে হবে। আর তার ব্যাখ্যা হ’তে হবে সালাফে ছালেহীনের বুঝ অনুযায়ী। নিজেদের মনগড়া বুঝ অনুযায়ী নয়। তিনি বলেন, মতভেদ দূর করার জন্য আমাদেরকে এ পথেই এগিয়ে আসতে হবে।

এ সময়ে মুহতারাম আমীরে জামা‘আত নগরীর এই গুরুত্বপূর্ণ স্থানে আহলেহাদীছ জামে মসজিদ কমপ্লেক্স-এর জন্য জমি দান করায় আমেরিকা প্রবাসী জনাব আব্দুশ শাকূরের জন্য খাছ দো‘আ করেন এবং এটিকে অত্রাঞ্চলে ‘আহলেহাদীছ আন্দোলনে’র মারকায হিসাবে কবুলের জন্য মহান আল্লাহর নিকটে প্রার্থনা করেন।

উল্লেখ্য যে, সারাদিন টিপটিপ বৃষ্টির মধ্যেও শহরের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে বিপুল সংখ্যক মুছল্লী আমীরে জামা‘আতের খুৎবা শুনার জন্য মসজিদে সমবেত হন। কিন্তু মসজিদে স্থান সংকুলান না হওয়ায় অনেককে বাহিরে ছাতা মাথায় দাঁড়িয়ে বক্তব্য শুনতে হয়। অতঃপর খুৎবা শেষে পর পর তিনটি জামা‘আতে ছালাত আদায় করতে হয়। মসজিদে মহিলাদের জন্য পৃথক ব্যবস্থা ছিল। 

যেলা কার্যালয় উদ্বোধন : জুম‘আর ছালাত শেষে আমীরে জামা‘আত মসজিদ সংলগ্ন যেলা ‘আন্দোলন’-এর নতুন কার্যালয় উদ্বোধন করেন। এ সময়ে সমবেত দায়িত্বশীলদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, বাণিজ্যিক রাজধানী হিসাবে এখানে সারা দেশ থেকে মানুষ আসবে। তাদের নিকটে আহলেহাদীছ আন্দোলনের দাওয়াত পেশ করা এবং প্রতিবেশী ভাই-বোনদের মধ্যে বিশেষ করে যুবসমাজের মধ্যে দাওয়াত প্রসারের জন্য সাংগঠনিক নির্দেশনা অনুযায়ী আপনারা নিয়মিতভাবে কার্যক্রম পরিচালনা করুন। সেই সাথে বৃহত্তর চট্টগ্রাম অঞ্চলে দাওয়াত প্রসারে আত্মনিয়োগ করুন।

সুধী সমাবেশ : অতঃপর বাদ আছর থেকে পূর্ব ঘোষিত সুধী সমাবেশের কার্যক্রম শুরু হয়। যেলা সভাপতি মুহাম্মাদ শামীম আহসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সমাবেশে প্রধান অতিথির ভাষণে মুহতারাম আমীরে জামা‘আত ‘আলেমদের মধ্যে মতভেদের স্বরূপ ও তা দূরীকরণের উপায়’ শীর্ষক একটি গুরুত্বপূর্ণ ভাষণ প্রদান করেন (নেট থেকে শুনুন)

সুধী সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য পেশ করেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক ড. মুহাম্মাদ সাখাওয়াত হোসাইন।

কক্সবাজারের উদ্দেশ্যে যাত্রা অতঃপর ফিরে আসা : পরদিন ৩১শে অক্টোবর শনিবার সকাল ৯-টার গ্রীনলাইন কোচ যোগে আমীরে জামা‘আত ও তাঁর সফরসঙ্গীগণ কক্সবাজারের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হন। উল্লেখ্য, ‘কক্সবাজার সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে’ যেলা ‘আন্দোলন’-এর উদ্যোগে যেলা সম্মেলনের সকল প্রস্ত্ততি সম্পন্নের পর স্থানীয় প্রশাসন বিনা কারণে মাত্র একদিন আগে সম্মেলনের অনুমতি বাতিল করে দেয়। ফলে দায়িত্বশীলদের সাথে মতবিনিময় এবং পূর্বেই বিমানের টিকেট কাটা থাকায় কক্সবাজার হয়ে ঢাকা ফেরার উদ্দেশ্যে আমীরে জামা‘আত কক্সবাজারের পথে রওয়ানা হন। দুঃখজনক যে, ৯০ কিলোমিটার পথ যাওয়ার পর বাধ সাধে কক্সবাজারের স্থানীয় প্রশাসন। কক্সবাজার প্রবেশ করলেই গ্রেফতার করা হবে এমন ন্যক্কারজনক হুমকি প্রদান করে প্রশাসনের কান্ডজ্ঞানহীন কর্তা ব্যক্তিরা। বাধ্য করা হয় মাঝপথ থেকে পুনরায় চট্টগ্রাম ফিরে আসতে। অতঃপর ভাড়া করা মাইক্রো যোগে বেলা আড়াইটার দিকে রওয়ানা হয়ে ভাঙ্গা রাস্তা মাড়িয়ে অত্যন্ত কষ্ট করে রাত ৮-টায় তারা চট্টগ্রাম পৌঁছেন। অতঃপর চট্টগ্রামে রাত্রি যাপন করে পরদিন সকাল ৯-টার বিমান যোগে আমীরে জামা‘আত ও তাঁর সাথীরা ঢাকায় পৌঁছেন।

টাঙ্গাইল যেলা সম্মেলনে যোগদান : চট্টগ্রাম থেকে ফিরে আমীরে জামা‘আত ঢাকায় অধ্যাপক আশরাফুল ইসলামের বাসায় রাত্রি যাপন করেন। অতঃপর পরদিন ২রা নভেম্বর টাঙ্গাইল যেলা সম্মেলনে যোগদানের উদ্দেশ্যে ভোর ৬-টার ধূমকেতু ট্রেন যোগে তিনি টাঙ্গাইলের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হন। সকাল সাড়ে ৮-টায় টাঙ্গাইল ষ্টেশনে পৌঁছলে সেখানে তাকে অভ্যর্থনা জানান যেলা ‘আন্দোলন’-এর সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল্লাহ আল-মামূন ও অন্যান্য কর্মীগণ। ছাতিহাটীতে পৌঁছে তিনি জনাব ওছমান গণীর বাড়ীতে অবস্থান করেন। অতঃপর যেলার কালীহাতী থানাধীন ছাতিহাটী সম্মিলিত ঈদগাহ ময়দানে সকাল ১০-টা থেকে মাগরিব পর্যন্ত অনুষ্ঠিত যেলা সম্মেলনে প্রধান অতিথির ভাষণে সমবেত শ্রোতাদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আসুন আমরা নিজেদেরকে ও নিজেদের পরিবারকে জাহান্নামের আগুন থেকে বাঁচাতে চেষ্টা করি। সর্বব্যাপী জাহেলিয়াতের গাঢ় অন্ধকারে ছিরাতে মুস্তাক্বীমের পথে চলি। সমাজের উল্টা স্রোতকে সোজা পথে ফিরিয়ে আনার জন্য আসুন আমরা সংঘবদ্ধভাবে আল্লাহর বিধান প্রতিষ্ঠায় আত্মনিয়োগ করি।

যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি জনাব মুহাম্মাদ আব্দুল ওয়াজেদ-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য পেশ করেন, ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক ড. মুহাম্মাদ সাখাওয়াত হোসাইন, ঢাকা মাদারটেক আহলেহাদীছ জামে মসজিদের খত্বীব মাওলানা আমানুল্লাহ বিন ইসমাঈল, ঢাকা যেলা ‘আন্দোলন’-এর সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম বিন হাবীব, জামালপুর-দক্ষিণ যেলা ‘আন্দোলন’-এর সাধারণ সম্পাদক ক্বামারুযযামান বিন আব্দুল বারী, যেলা ‘আন্দোলন’-এর প্রচার সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল-মামূন, যেলা ‘যুবসংঘে’র সভাপতি আব্দুল মাজেদ, সহ-সভাপতি ছালাহুদ্দীন প্রমুখ। ইসলামী জাগরণী পরিবেশন করেন ‘আল-হেরা শিল্পী গোষ্ঠী’র প্রধান মুহাম্মাদ শফীকুল ইসলাম ও মাদরাসা মুহাম্মাদিয়া আরাবিয়া, যাত্রাবাড়ী, ঢাকার ছাত্র ইবরাহীম ও আব্দুর রহমান।

দায়িত্বশীল সভা : বাদ আছর মুহতারাম আমীরে জামা‘আত যেলার দায়িত্বশীলগণের সাথে বৈঠকে মিলিত হন এবং যেলার সার্বিক দাওয়াতী ও সাংগঠনিক কার্যক্রম সম্পর্কে অবহিত হন। তিনি তাঁদেরকে প্রয়োজনীয় দিক নির্দেশনা প্রদান করেন। এ সময় যেলা সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন মজলিসে শূরা সদস্য জামালপুর-দক্ষিণ যেলা সভাপতি অধ্যাপক বযলুর রহমান।

উল্লেখ্য যে, বক্তব্য শুরুর ঠিক পূর্ব মুহূর্তে আমীরে জামা‘আত হঠাৎ নিঃশ্বাস বন্ধ হয়ে অসুস্থ বোধ করেন। অতঃপর কিছু সময় চুপ থাকেন ও পানি পান করেন। উপস্থিত সকলে তাঁর জন্য খাছ দো‘আ করতে থাকেন। ক্ষণিক পর স্বস্তিবোধ করলে তিনি ধীরে ধীরে বক্তব্য শুরু করেন। ফালিল্লা-হিল হাম্দ। সম্মেলন শেষে আমীরে জামা‘আত যেলা ‘আন্দোলন’-এর সাবেক সহ-সভাপতি গত ২৪শে অক্টোবর  ষ্ট্রোক করে আকস্মিকভাবে মৃত্যুবরণকরী ক্বারী আব্দুর রশীদের বাড়ীতে গমন করেন এবং শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন ও তাদেরকে ধৈর্যধারণের উপদেশ দেন। ইতিপূর্বে তিনি তার কবর যেয়ারত করেন। মুহতারাম আমীরে জামা‘আত এখানে ১৯৯৭ সালে জামে মসজিদ নির্মাণ করে দেন। যা এখন দোতলা করা হয়েছে।

রাজশাহী প্রত্যাবর্তন : একটানা পাঁচ দিনের সাংগঠনিক সফর শেষে মুহতারাম আমীরে জামা‘আত টাঙ্গাইল হ’তে সন্ধ্যা সাতটায় মাইক্রো যোগে রাজশাহীর উদ্দেশ্যে রওয়ানা হয়ে রাত সাড়ে দশটায় নওদাপাড়া মারকাযে পৌঁছেন। ফালিল্লা-হিল হাম্দ।

দেশব্যাপী যেলা কমিটি সমূহ পুনর্গঠন

২৭. রংপুর ২১শে সেপ্টেম্বর সোমবার : অদ্য বাদ আছর ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন বাংলাদেশ’ রংপুর যেলার উদ্যোগে শহরের পূর্ব খাসবাগ আহলেহাদীছ জামে মসজিদে যেলা কমিটি পুনর্গঠন উপলক্ষে এক পরামর্শ সভা অনুষ্ঠিত হয়। যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মাস্টার খায়রুল আযাদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সভায় কেন্দ্রীয় মেহমান হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় সেক্রেটারী জেনারেল অধ্যাপক মাওলানা নূরুল ইসলাম। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য পেশ করেন ‘যুবসংঘ’-এর সমাজকল্যাণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল-মামূন ও যেলা ‘যুবসংঘ’-এর সাধারণ সম্পাদক আদনান। সভা শেষে মাস্টার খায়রুল আযাদকে সভাপতি ও মুহাম্মাদ আতীকুর রহমানকে সাধারণ সম্পাদক করে ১০ সদস্য বিশিষ্ট যেলা কমিটি পুনর্গঠন করা হয়।

২৮. গোপালগঞ্জ ১৫ই অক্টোবর বৃহস্পতিবার : অদ্য বাদ মাগরিব ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন বাংলাদেশ’ গোপালগঞ্জ যেলার উদ্যোগে শহরের মিয়াঁপাড়া আহলেহাদীছ জামে মসজিদে যেলা কমিটি গঠন উপলক্ষে এক পরামর্শ সভা অনুষ্ঠিত হয়। অত্র মসজিদের ইমাম জনাব ফরহাদ হোসাইনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সভায় কেন্দ্রীয় মেহমান হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পিরোজপুর যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি অধ্যাপক আব্দুল হামীদ ও বাগেরহাট যেলা ‘আন্দোলন’-এর সহ-সভাপতি মাওলানা আহমাদ আলী। সভা শেষে মাস্টার সোহরাব হোসাইনকে আহবায়ক এবং মুহাম্মাদ ফরহাদ হোসাইন ও এস. এম. রেযওয়ান আহমাদকে সদস্য করে যেলা আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়।

২৯. টাঙ্গাইল ১৭ই অক্টোবর শনিবার : অদ্য বাদ যোহর ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন বাংলাদেশ’ টাঙ্গাইল যেলার উদ্যোগে শহরের ভবানীগঞ্জ-পাতুলী আহলেহাদীছ জামে মসজিদে যেলা কমিটি পুনর্গঠন উপলক্ষে এক পরামর্শ সভা অনুষ্ঠিত হয়। যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মুহাম্মাদ আব্দুল ওয়াজেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সভায় কেন্দ্রীয় মেহমান হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় প্রশিক্ষণ সম্পাদক ড. মুহাম্মাদ কাবীরুল ইসলাম। সভা শেষে মুহাম্মাদ আব্দুল ওয়াজেদকে সভাপতি ও আব্দুল্লাহ আল-মামূনকে সাধারণ সম্পাদক করে ১০ সদস্য বিশিষ্ট যেলা কমিটি পুনর্গঠন করা হয়।

৩০. সিরাজগঞ্জ ১৯শে অক্টোবর সোমবার : অদ্য বাদ আছর ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন বাংলাদেশ’ সিরাজগঞ্জ যেলার উদ্যোগে কামারখন্দ থানাধীন বড়কুড়া আহলেহাদীছ জামে মসজিদে যেলা কমিটি পুনর্গঠন উপলক্ষে এক পরামর্শ সভা ও সংক্ষিপ্ত প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হয়। যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মুহাম্মাদ মুর্তাযার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সভায় কেন্দ্রীয় মেহমান হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় সেক্রেটারী জেনারেল অধ্যাপক মাওলানা নূরুল ইসলাম। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য পেশ করেন, যেলা ‘যুবসংঘ’-এর সভাপতি মুহাম্মাদ শামীম ও কামারখন্দ থানাধীন বরদুল দাখিল মাদরাসার শিক্ষক মাওলানা আনোয়ার। সভা শেষে মুহাম্মাদ মুর্তাযাকে সভাপতি ও মুহাম্মাদ আব্দুল মতীনকে সাধারণ সম্পাদক করে ১০ সদস্য বিশিষ্ট যেলা কমিটি পুনর্গঠন করা হয়।

৩১. ময়মনসিংহ ২১শে অক্টোবর বুধবার : অদ্য বাদ আছর ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন বাংলাদেশ’ ময়মনসিংহ যেলার উদ্যোগে যেলার ত্রিশাল থানাধীন নওদার শেখ ছাবেত আলী হাফিযিয়া মাদরাসায় যেলা কমিটি পুনর্গঠন উপলক্ষে এক পরামর্শ সভা ও সংক্ষিপ্ত প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হয়। যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি ডা. আব্দুল কাদেরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সভায় কেন্দ্রীয় মেহমান হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় সেক্রেটারী জেনারেল অধ্যাপক মাওলানা নূরুল ইসলাম ও সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য পেশ করেন যেলা ‘আন্দোলন’-এর সহ-সভাপতি আবুল কালাম, সাধারণ সম্পাদক মাওলানা ছফিরুদ্দীন ও যেলা ‘সোনামণি’ পরিচালক মুহাম্মাদ আলী প্রমুখ। সভা শেষে ডা. আব্দুল কাদেরকে সভাপতি ও মাওলানা ছফিরুদ্দীনকে সাধারণ সম্পাদক করে ১০ সদস্য বিশিষ্ট যেলা কমিটি পুনর্গঠন করা হয়।

৩২. গাযীপুর ২২শে অক্টোবর বৃহস্পতিবার : অদ্য বাদ আছর ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন বাংলাদেশ’ গাযীপুর যেলার উদ্যোগে মণিপুর বাজার কেন্দ্রীয় আহলেহাদীছ জামে মসজিদে যেলা কমিটি পুনর্গঠন উপলক্ষে এক পরামর্শ সভা অনুষ্ঠিত হয়। যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মুহাম্মাদ হাবীবুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সভায় কেন্দ্রীয় মেহমান হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় সেক্রেটারী জেনারেল অধ্যাপক মাওলানা নূরুল ইসলাম ও সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম। সভা শেষে মুহাম্মাদ হাবীবুর রহমানকে সভাপতি ও মুহাম্মাদ জাহাঙ্গীর আলমকে সাধারণ সম্পাদক করে ১০ সদস্য বিশিষ্ট যেলা কমিটি পুনর্গঠন করা হয়।

৩৩. সিলেট ২২শে অক্টোবর বৃহস্পতিবার : অদ্য বাদ মাগরিব ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন বাংলাদেশ’ সিলেট যেলার উদ্যোগে শহরের মীরের ময়দানস্থ ‘কিউসেট ইনস্টিটিউটে’র অফিস কক্ষে যেলা কমিটি পুনর্গঠন উপলক্ষে এক পরামর্শ সভা অনুষ্ঠিত হয়। যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি ফায়যুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সভায় কেন্দ্রীয় মেহমান হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক ড. মুহাম্মাদ সাখাওয়াত হোসাইন। সভা শেষে ফায়যুল ইসলামকে সভাপতি ও আব্দুল কাবীরকে সাধারণ সম্পাদক করে ১০ সদস্য বিশিষ্ট যেলা কমিটি পুনর্গঠন করা হয়।

৩৪. পিরোজপুর ২২শে অক্টোবর বৃহস্পতিবার : অদ্য বাদ আছর ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন বাংলাদেশ’ পিরোজপুর যেলার উদ্যোগে যেলার স্বরূপকাঠি থানাধীন সোহাগদল আহলেহাদীছ জামে মসজিদে যেলা কমিটি পুনর্গঠন উপলক্ষে এক পরামর্শ সভা অনুষ্ঠিত হয়। যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি অধ্যাপক আব্দুল হামীদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সভায় কেন্দ্রীয় মেহমান হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় অর্থ সম্পাদক বাহারুল ইসলাম। সভা শেষে অধ্যাপক আব্দুল হামীদকে সভাপতি ও মুহাম্মাদ ওয়ালিউল্লাহকে সাধারণ সম্পাদক করে ১০ সদস্য বিশিষ্ট যেলা কমিটি পুনর্গঠন করা হয়।

৩৫. বরিশাল ২৩শে অক্টোবর শুক্রবার : অদ্য বাদ জুম‘আ ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন বাংলাদেশ’ বরিশাল যেলার উদ্যোগে যেলার উযীরপুর থানাধীন সোলক আহলেহাদীছ জামে মসজিদে যেলা কমিটি পুনর্গঠন উপলক্ষে এক পরামর্শ সভা অনুষ্ঠিত হয়। অত্র মসজিদের ইমাম আব্দুস সালামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সভায় কেন্দ্রীয় মেহমান হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় অর্থ সম্পাদক বাহারুল ইসলাম, পিরোজপুর যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি অধ্যাপক আব্দুল হামীদ। সভা শেষে ইবরাহীম কাওছার সালাফীকে সভাপতি ও মুস্তাফীযুর রহমানকে সাধারণ সম্পাদক করে ১০ সদস্য বিশিষ্ট যেলা কমিটি পুনর্গঠন করা হয়।

৩৬. মৌলভীবাজার ২৩শে অক্টোবর শুক্রবার : অদ্য বাদ জুম‘আ ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন বাংলাদেশ’ মৌলভী বাজার যেলার উদ্যোগে কুলাউড়া উপযেলা সদরের দক্ষিণ মাগুরায় ‘আন্দোলন’-এর আহবায়ক কমিটির সদস্য জনাব আবু মুহাম্মাদ সোহেল (সোহায়েল)-এর বাসায় যেলা কমিটি পুনর্গঠন উপলক্ষে এক পরামর্শ সভা অনুষ্ঠিত হয়। যেলা ‘আন্দোলন’-এর আহবায়ক মুহাম্মাদ ছাদেকুন নূর-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সভায় কেন্দ্রীয় মেহমান হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক ড. মুহাম্মাদ সাখাওয়াত হোসাইন। সভা শেষে জনাব ছাদেকুন নূরকে সভাপতি ও আবু মুহাম্মাদ সোহেলকে সাধারণ সম্পাদক করে ১০ সদস্য বিশিষ্ট যেলা কমিটি পুনর্গঠন করা হয়।

৩৭. নরসিংদী ২৩শে অক্টোবর শুক্রবার : অদ্য বাদ মাগরিব ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন বাংলাদেশ’ নরসিংদী যেলার উদ্যোগে পাঁচদোনা বাজার আহলেহাদীছ জামে মসজিদে যেলা কমিটি পুনর্গঠন উপলক্ষে এক পরামর্শ সভা অনুষ্ঠিত হয়। যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি কাযী আমীনুদ্দীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সভায় কেন্দ্রীয় মেহমান হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় সেক্রেটারী জেনারেল অধ্যাপক মাওলানা নূরুল ইসলাম ও সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যাপক মাওলানা সিরাজুল ইসলাম। সভা শেষে মাওলানা কাযী আমীনুদ্দীনকে সভাপতি ও মুহাম্মাদ দেলাওয়ার হোসাইনকে সাধারণ সম্পাদক করে ১০ সদস্য বিশিষ্ট যেলা কমিটি পুনর্গঠন করা হয়।

৩৮. কুমিল্লা ২৪শে অক্টোবর শনিবার : অদ্য সকাল ১০-টায় ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন বাংলাদেশ’ কুমিল্লা যেলার উদ্যোগে শহরের শাসনগাছা ইসলামিক কমপ্লেক্স জামে মসজিদে যেলা কমিটি পুনর্গঠন উপলক্ষে এক পরামর্শ সভা অনুষ্ঠিত হয়। যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মাওলানা ছফিউল্লাহর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সভায় কেন্দ্রীয় মেহমান হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় সেক্রেটারী জেনারেল অধ্যাপক মাওলানা নূরুল ইসলাম ও সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যাপক মাওলানা সিরাজুল ইসলাম। সভা শেষে মাওলানা ছফিউল্লাহকে সভাপতি ও মাওলানা মুহাম্মাদ মুছলেহুদ্দীনকে সাধারণ সম্পাদক করে ১০ সদস্য বিশিষ্ট যেলা কমিটি পুনর্গঠন করা হয়।

৩৯. মেহেরপুর ২৫শে অক্টোবর রবিবার : অদ্য সকাল ১০-টায় ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন বাংলাদেশ’ মেহেরপুর যেলার উদ্যোগে যেলার সদর থানাধীন উত্তর শালিখা আহলেহাদীছ জামে মসজিদে যেলা কমিটি পুনর্গঠন উপলক্ষে এক পরামর্শ সভা ও সংক্ষিপ্ত প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হয়। মেহেরপুর সদর উপযেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি আযীমুদ্দীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সভায় কেন্দ্রীয় মেহমান হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় সেক্রেটারী জেনারেল অধ্যাপক মাওলানা নূরুল ইসলাম ও দফতর ও যুববিষয়ক সম্পাদক অধ্যাপক আমীনুল ইসলাম। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য পেশ করেন ‘আহলেহাদীছ যুবসংঘ’-এর কেন্দ্রীয় সভাপতি আব্দুর রশীদ আখতার, যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মাওলানা মানছূরুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল মুমিন, মুজিব নগর উপযেলা সভাপতি আযমাতুল্লাহ, চুয়াডাঙ্গা যেলার দামুড়হুদা উপযেলা সভাপতি নযরুল ইসলাম মাস্টার ও মেহেরপুর পৌর কলেজের শিক্ষক আহসানুল হক প্রমুখ। সভা শেষে মাওলানা মানছূরুর রহমানকে সভাপতি ও মুহাম্মাদ তারীকুয্যামানকে সাধারণ সম্পাদক করে ১০ সদস্য বিশিষ্ট যেলা কমিটি পুনর্গঠন করা হয়।

৪০. নাটোর ২৯শে অক্টোবর বৃহস্পতিবার : অদ্য বাদ যোহর ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন বাংলাদেশ’ নাটোর যেলার উদ্যোগে যেলার বড়াইগ্রাম থানাধীন মালিপাড়া আহলেহাদীছ জামে মসজিদে যেলা কমিটি পুনর্গঠন উপলক্ষে এক পরামর্শ সভা অনুষ্ঠিত হয়। যেলা ‘আন্দোলন’-এর সহ-সভাপতি আব্দুল আযীযের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সভায় কেন্দ্রীয় মেহমান হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় শূরা সদস্য ড. মুহাম্মাদ আলী। সভা শেষে ড. মুহাম্মাদ আলীকে সভাপতি ও আব্দুল্লাহিল কাফীকে সাধারণ সম্পাদক করে ১০ সদস্য বিশিষ্ট যেলা কমিটি পুনর্গঠন করা হয়।

৪১. চট্টগ্রাম ৩০শে অক্টোবর শুক্রবার : অদ্য বাদ এশা ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন বাংলাদেশ’ চট্টগ্রাম যেলার উদ্যোগে শহরের উত্তর পতেঙ্গাস্থ বায়তুর রহমান আহলেহাদীছ জামে মসজিদ কমপ্লেক্স সংলগ্ন যেলা কার্যালয়ে যেলা কমিটি পুনর্গঠন উপলক্ষে এক পরামর্শ সভা অনুষ্ঠিত হয়। যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মুহাম্মাদ শামীম আহসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সভায় কেন্দ্রীয় মেহমান হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক ড. মুহাম্মাদ সাখাওয়াত হোসাইন। সভা শেষে জনাব শামীম আহসানকে সভাপতি ও মুহাম্মাদ শেখ সাদীকে সাধারণ সম্পাদক করে ১০ সদস্য বিশিষ্ট যেলা কমিটি পুনর্গঠন করা হয়।

৪২. বাগেরহাট ৭ই নভেম্বর শনিবার : অদ্য সকাল ১০-টায় ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন বাংলাদেশ’ বাগেরহাট যেলার উদ্যোগে শহরের উপকণ্ঠে আল-মারকাযুল ইসলামী কালদিয়া সংলগ্ন জামে মসজিদে যেলা কমিটি পুনর্গঠন উপলক্ষে এক পরামর্শ সভা অনুষ্ঠিত হয়। যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি সরদার আশরাফ হোসাইনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সভায় কেন্দ্রীয় মেহমান হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় প্রশিক্ষণ সম্পাদক ড. মুহাম্মাদ কাবীরুল ইসলাম। সভা শেষে সরদার আশরাফ হোসাইনকে সভাপতি ও মাওলানা যুবাইর ঢালীকে সাধারণ সম্পাদক করে ১০ সদস্য বিশিষ্ট যেলা কমিটি পুনর্গঠন করা হয়।

৪৩. খুলনা ৭ই নভেম্বর শনিবার : অদ্য বাদ মাগরিব ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন বাংলাদেশ’ খুলনা যেলার উদ্যোগে শহরের গোবরচাকা মুহাম্মাদিয়া জামে মসজিদে যেলা কমিটি পুনর্গঠন উপলক্ষে এক পরামর্শ সভা অনুষ্ঠিত হয়। যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মাওলানা জাহাঙ্গীর আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সভায় কেন্দ্রীয় মেহমান হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় সমাজকল্যাণ সম্পাদক গোলাম মোক্তাদির ও প্রশিক্ষণ সম্পাদক ড. মুহাম্মাদ কাবীরুল ইসলাম। সভা শেষে মাওলানা জাহাঙ্গীর আলমকে সভাপতি ও মুহাম্মাদ মুয্যাম্মিল হককে সাধারণ সম্পাদক করে ১০ সদস্য বিশিষ্ট যেলা কমিটি পুনর্গঠন করা হয়।

৪৪. যশোর ১০ই নভেম্বর মঙ্গলবার : অদ্য সকাল ১১-টায় ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন বাংলাদেশ’ যশোর যেলার উদ্যোগে যেলার মণিরামপুর থানাধীন চন্ডিপুর আহলেহাদীছ জামে মসজিদে যেলা কমিটি পুনর্গঠন উপলক্ষে এক পরামর্শ সভা অনুষ্ঠিত হয়। যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি ডা. আ.ন.ম. বযলুর রশীদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সভায় কেন্দ্রীয় মেহমান হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম। সভা শেষে ডা. আ.ন.ম. বযলুর রশীদকে সভাপতি ও অধ্যাপক আকবার হোসাইনকে সাধারণ সম্পাদক করে ১০ সদস্য বিশিষ্ট যেলা কমিটি পুনর্গঠন করা হয়।

৪৫. জামালপুর ১১ই নভেম্বর বুধবার : অদ্য বাদ আছর ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন বাংলাদেশ’ জামালপুর-দক্ষিণ যেলার উদ্যোগে যেলার সরিষাবাড়ী থানাধীন সেঙ্গুয়া ফাযিল মাদরাসা সংলগ্ন জামে মসজিদে যেলা কমিটি পুনর্গঠন উপলক্ষে এক পরামর্শ সভা অনুষ্ঠিত হয়। যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি অধ্যাপক বযলুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সভায় কেন্দ্রীয় মেহমান হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় গবেষণা ও প্রকাশনা সম্পাদক অধ্যাপক আব্দুল লতীফ। সভা শেষে অধ্যাপক বযলুর রহমানকে সভাপতি ও ক্বামারুয্যামান বিন আব্দুল বারীকে সাধারণ সম্পাদক করে ১০ সদস্য বিশিষ্ট যেলা কমিটি পুনর্গঠন করা হয়।

৪৬. ঢাকা ১৪ই নভেম্বর শনিবার : অদ্য বাদ মাগরিব ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন বাংলাদেশ’ ঢাকা যেলার উদ্যোগে বংশালস্থ যেলা কার্যালয়ে যেলা কমিটি পুনর্গঠন উপলক্ষে এক পরামর্শ সভা অনুষ্ঠিত হয়। যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মুহাম্মাদ আহসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সভায় কেন্দ্রীয় মেহমান হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় সেক্রেটারী জেনারেল অধ্যাপক মাওলানা নূরুল ইসলাম ও সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম। সভা শেষে মুহাম্মাদ আহসানকে সভাপতি ও মুহাম্মাদ তাসলীম সরকারকে সাধারণ সম্পাদক করে ১০ সদস্য বিশিষ্ট যেলা কমিটি পুনর্গঠন করা হয়।

মৃত্যু সংবাদ

‘আহলেহাদীছ আন্দোলন বাংলাদেশ’ টাঙ্গাইল যেলার সাবেক সহ-সভাপতি ক্বারী মুহাম্মাদ আব্দুর রশীদ (৮৫) গত ২৪শে অক্টোবর শনিবার দুপুর ২-টা ৩০ মিনিটে যেলার কালীহাতি থানাধীন ছাতিহাটী গ্রামের নিজ বাড়ীতে ষ্ট্রোক করেন। অতঃপর তাকে টাঙ্গাইল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হ’লে ডাক্তাররা তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন। ঢাকা নেওয়ার পথে কালিয়াকৈর পৌঁছলে তিনি মৃত্যুবরণ করেন (ইন্না লিল্লা-হি ওয়া ইন্না ইলাইহে রাজেঊন)। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, ২ ছেলে, ৪ মেয়ে রেখে গেছেন। পরদিন রবিবার সকাল ১১-টায় ছাতিহাটী সম্মিলিত ঈদগাহ ময়দানে তার জানাযার ছালাত অনুষ্ঠিত হয়। জানাযার ছালাতে ইমামতি করেন তার কনিষ্ঠ পুত্র মাওলানা মুহাম্মাদ হারূণ। অতঃপর তাকে ছাতিহাটী গ্রামের কবরস্থানে দাফন করা হয়। জানাযায় যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি আব্দুল ওয়াজেদ ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল-মামূন ও অন্যান্য কর্মীগণ এবং গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

[আমরা তার রূহের মাগফেরাত কামনা করছি এবং শোকাহত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করছি- সম্পাদক]