স্বদেশ-বিদেশ

স্বদেশ

আল্লাহর ৯৯ নাম কাফের ও দেবতাদের

-আবদুল গাফফার চৌধুরী

গত ৩রা জুলাই নিউইয়র্কে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনে ‘বাংলাদেশ : অতীত, বর্তমান ও ভবিষ্যৎ’ শীর্ষক আলোচনা সভায় লন্ডন প্রবাসী বাংলাদেশী সাংবাদিক ও লেখক আব্দুল গাফফার চৌধুরী ‘ইসলাম’ সম্পর্কে চরম ধৃষ্টতাপূর্ণ বক্তব্য পেশ করেন। জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী প্রতিনিধি ড. এ কে আব্দুল মোমেনের পরিচালনায় উক্ত আলোচনা সভায় তিনি বলেন, ‘আজকের আরবী ভাষায় যেসব শব্দ; এর সবই কাফেরদের ব্যবহৃত শব্দ। যেমন আল্লাহর ৯৯ নাম। সবই কিন্তু কাফেরদের দেবতাদের নাম। তাদের ভাষা ছিল আর-রহমান, গাফফার, গফুর ইত্যাদি। সবই কিন্তু পরবর্তীতে ইসলাম এডাপ্ট (সংযোজন) করেছিল।

নারীদের বোরকা ও হিজাব নিয়েও বিরূপ মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশে এটা হচ্ছে ওয়াহহাবীদের লাস্ট কালচারাল ইনভলব। আমি অবাক হচ্ছি। ক্লাস টু’য়ের মেয়েরা হিজাব ও বোরকা পরবে! এটা আমাদের ধর্ম শিক্ষা হ’তে পারে? মুসলমান মেয়েরা মনে করে হিজাব, বোরকা হচ্ছে ইসলামের আইডিন্টিটি। আসলে কি তাই?...

কট্টর আওয়ামীপন্থী ও ইসলাম বিদ্বেষী হিসাবে পরিচিত লেখক আব্দুল গাফফার চৌধুরী বলেন, এখন যুগ পাল্টেছে। এখন বাংলাদেশে বোরকা পরার বিপক্ষে অনেকেই জেগে উঠেছে। এসব ধর্মান্ধতার বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে’।

রাসূল ও রাসূলুল্লাহ এক নয় মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘রাসূল মানে দূত, অ্যাম্ব্যাসেডর। ‘রাসূলে সালাম’ মানে শান্তির দূত। রাসূল বললেই আপনারা মনে করেন হযরত মুহাম্মদ। তা কিন্তু নয়। যখন রাসূলুল্লাহ বলবেন তখন মনে করবেন আল্লাহর প্রতিনিধি। এখন মোমেন ভাই আমেরিকায় থেকে যদি বলেন কিংবা আমি নিজেকে রাসূল দাবি করলে কল্লা যাবে’।

কিছুদিন মাদ্রাসায় পড়ার কথা জানিয়ে আব্দুল গাফফার চৌধুরী আরও বলেন, ‘সবচেয়ে বেশি হাদীছ সংগ্রহকারী আবু হুরায়রা নামের অর্থ হচ্ছে বিড়ালের বাবা। আবুবকর নামের অর্থ হচ্ছে ছাগলের বাবা। তিনি বলেন, সাতশ’ বছর ধরে আমরা নামায, খোদা হাফেয শব্দ বলেছি। এখন ছালাত, আল্লাহ হাফেয শব্দে পরিণত হয়েছে। এগুলো ওহাবীদের সৃষ্টি। কাফেরদের মধ্যে যারা মুসলমান হয়েছিল পরবর্তীতে তাদের নাম পরিবর্তন করা হয়নি’।

বাংলাদেশ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘পুরো দেশ এখন দাড়ি-টুপিতে ছেয়ে গেছে। সরকারী অফিসসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে টুপি আর দাড়ির সমাহার। অথচ তারা ঘুষ খাচ্ছেন। এত বড় দাড়ি, এত বড় টুপি; কিন্তু ঘুষ না পেলে ফাইলে হাত দেন না। এটা কি ইসলামের শিক্ষা?

রাসূল (ছাঃ), হজ্জ ও ইসলাম ধর্ম নিয়ে কটূক্তি করার দায়ে মন্ত্রীত্ব হারানো আব্দুল লতীফ সিদ্দীকীর পক্ষে সাফাই গেয়ে রসিকতার সুরে তিনি বলেন, ‘আব্দুল লতীফ সিদ্দীকী কী এমন বলেছিল? তাকে বিপদে পড়তে হয়েছে। তার জন্য আজকে দেশে আন্দোলন হচ্ছে। এসবই হচ্ছে ওহাবীয় মতবাদ ও মাওলানা মওদূদীর চাপিয়ে দেয়া সংস্কৃতি। ...আব্দুল ওহাব নামে কট্টর এক ব্যক্তির ধারায় এ অঞ্চলে ওহাবী মতবাদ চাপিয়ে দেয় সউদী আরব।

বিশ্বব্যাপী জঙ্গিবাদের উত্থান প্রসঙ্গে তথাকথিত প্রগতিশীল এই লেখক বলেন, ‘আমেরিকা তালেবান সৃষ্টি করে বিপদে পড়েছে। আর ব্রিটিশরা ভারতবর্ষকে ভেঙে টুকরো করার পাশাপাশি ইসলামী মতবাদকেও বিভক্ত করেছে পাকিস্তানকে দিয়ে। তিনি আরো বলেন, পরবর্তীতে সঊদী আরব ও ইরানের অর্থায়নে এ অঞ্চলে ওহাবী মতবাদ মাওলানা মওদূদীকে দিয়ে জামায়াতের মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়া হয়েছে।...

তিনি বলেন, ‘এভাবে মুসলমানে মুসলমানে বিভেদ সৃষ্টি করেছে ওহাবী ইযম। আমি তো মনে করি শেখ হাসিনার শত ভুলত্রুটি থাকলেও আজকের বাংলাদেশে সিম্বল অব সেক্যুলারিজম হচ্ছেন তিনি। তিনি শক্ত হাতে এ সব দমন না করলে বাংলাদেশ ধ্বংস হয়ে যেত।

তিনি বলেন, আমার হয়ত ভুল হ’তে পারে। কিন্তু আমার একটি বিশ্বাস আছে। সেই বিশ্বাসের উপর ভিত্তি করেই আমি লিখছি। আমি বাঙালি জাতীয়তাবাদে বিশ্বাসী। মৌলবাদী রাষ্ট্র আমরা চাই না, আমরা ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র চাই’।

তার এ বক্তব্য নিয়ে প্রবাসীদের মধ্যে বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। আলোচনায় মূল বিষয়ের বাইরে গিয়ে আল্লাহ ও ইসলাম ধর্ম নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা করায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত অনেকেই বিব্রতবোধ করেন। ওই আলোচনা সভায় উপস্থিত বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ যুক্তরাষ্ট্র কমান্ডের আহবায়ক আব্দুল মুক্বীত চৌধুরী বলেন, বক্তব্যের বিষয়টি অত্যন্ত দুঃখজনক। আমরা যে দল কিংবা মতের হই না কেন, আল্লাহ, রাসূল (ছাঃ), ইসলাম ও নারীর পর্দা নিয়ে এসব কথা বলা উচিত নয়।

[কথায় বলে পাগলে কি-না কয়, ছাগলে কি-না খায়। আব্দুল লতীফ ছিদ্দীক্বী, আব্দুল গাফফার চৌধুরী ঐসব হস্তীমূর্খদের প্রতিনিধি। বাংলাদেশের মন্ত্রীসভায় এরূপ আরও কয়েকজন নাস্তিক ও পাগল আছেন। এইসব লোকদের জন্যই বাংলাদেশের ইসলামী ভাবমূর্তি বিনষ্ট হচ্ছে। অথচ এরা ১৬ কোটি মুসলিমের আদর্শিক প্রতিনিধি নয়। বরং জনবিচ্ছিন্ন কিছু বুদ্ধি প্রতিবন্ধী মাত্র। জানিনা এদেরকে দিয়ে প্রধানমন্ত্রী কোন স্বার্থ হাছিল করছেন। আমরা এদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবী করছি (স.স.)]

আইসিডিডিআরবির গবেষণা

টাইফয়েড শনাক্ত করার নতুন পদ্ধতি

টাইফয়েড ও প্যারাটাইফয়েড জ্বর নির্ণয়ের একটি নতুন পরীক্ষাপদ্ধতি বের করেছেন আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা কেন্দ্র (আইসিডিডিআরবি) বাংলাদেশ-এর একদল গবেষক। তারা বলেছেন, এই জ্বর শনাক্ত করতে পদ্ধতিটি পাঁচ বছরের কম বয়সী শিশুর পাশাপাশি প্রাপ্তবয়স্কদের ক্ষেত্রেও কার্যকর।  ফলে নির্ভুল রোগ নির্ণয় করে অল্প সময়ে চিকিৎসা দেওয়া সম্ভব হবে।

শনাক্তকরণের এই নতুন পদ্ধতি সম্পর্কে আইসিডিডিআরবির অন্যতম পরিচালক ড. ফেরদৌসী কাদরী বলেন, নতুন পদ্ধতিতে পরীক্ষাগারে রক্তের কোষীয় অংশের নমুনা বিশেষ প্রক্রিয়ায় ২৪ থেকে ৪৮ ঘণ্টা রাখার পর সেই পরিবর্তন দেখে টাইফয়েড শনাক্ত করা হয়। রক্তের নমুনায় জীবাণুর প্রত্যক্ষ উপস্থিতি ছাড়াই কেবল তার প্রভাবে সৃষ্ট প্রতিক্রিয়া দেখে রোগটি নির্ণয় করা যায়। এ পদ্ধতিতে অল্প পরিমাণ রক্তের নমুনা (মাত্র ১ মিলিলিটার) থেকেও রোগ নির্ণয় করা যায়। এ পদ্ধতির খরচ প্রচলিত পরীক্ষাপদ্ধতির সমান। তবে পরীক্ষার সরঞ্জামের কিছু পরিবর্তন আনতে হয়।

তিনি বলেন, প্রচলিত পরীক্ষায় ৩০ থেকে ৭০ ভাগ টাইফয়েড শনাক্ত করা যায়। চিকিৎসকদেরকে অনেক ক্ষেত্রেই অনুমাননির্ভর চিকিৎসা দেওয়া হয়। কিন্তু নতুন পদ্ধতিটি অল্প সময়ে নির্ভুলভাবে শনাক্ত করা সম্ভব হবে। 

বিদেশ

বিশ্বে ঘরছাড়া মানুষ ৬ কোটির বেশী

২০১৪ সালে যুদ্ধ, সংঘর্ষ অথবা নিপীড়নের শিকার হয়ে বিশ্বে ছয় কোটি মানুষ ঘরছাড়া হয়েছে। জাতিসংঘ শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআর’র এক প্রতিবেদনে এ তথ্য প্রকাশিত হয়েছে। প্রতিবেদনে জানানো হয়, ২০১৪ সালের তুলনায় এ বছর সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে ৮৩ লক্ষ। আর ঘরছাড়া মানুষের মধ্যে শরণার্থীর সংখ্যা প্রায় দু’কোটি। এদের মধ্যে অর্ধেকের বেশী শিশু। সিরিয়া সংকট এ সংখ্যা বৃদ্ধিকে ত্বরান্বিত করেছে।

সংস্থাটির প্রধান অ্যান্টনিও গুতেরেস বলেন, প্রতিদিনই ভোগান্তির শিকার মানুষের সংখ্যা বাড়ছে। সবচেয়ে দুর্ভাগ্যের বিষয় হলো, এদের অনেককেই কোনো সহায়তা দেয়ার উপায় নেই।

কিডনী দিয়ে পুত্রবধুর জীবন বাঁচালেন শাশুড়ী

সম্প্রতি ভারতের দিল্লীতে ঘটেছে এক অবিশ্বাস্য ঘটনা। জন্মদাত্রী  মা রাযী না হওয়ায় বিরল নযীর স্থাপন করে পুত্রবধূকে কিডনী দান করে নতুন প্রাণ দিলেন তার শাশুড়ী। ভারতের সমাজ ব্যবস্থার হিসাবে সম্পূর্ণ বিপরীতধর্মী ঘটনা বাস্তবে ঘটিয়ে আলোড়ন সৃষ্টি করেছেন শাশুড়ী ‘বিমলা’। পশ্চিম দিল্লীর উত্তম নগরের বাসিন্দা ৩৬ বছরের গৃহবধূ ‘কবিতা’ দীর্ঘদিন ধরেই কিডনীর সমস্যায় ভুগছিলেন। সম্প্রতি তার কিডনী প্রতিস্থাপনের জন্য হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। কবিতার মা প্রথমে নিজের মেয়েকে কিডনী দান করতে চাইলেও আচমকা তিনি বেঁকে বসেন। এমন সময় বৌমাকে কিডনী দিতে রাযী হয়ে যান তাঁর শাশুড়ী। শেষমেশ ৬৫ বছরের বিমলার কিডনীতেই নতুন জীবন পান কবিতা। ঘটনার পর হাসপাতালটির নেফ্রোলজি বিভাগের প্রধান সুনীল প্রকাশ বলেন, এটা একেবারেই বাস্তব ঘটনা। যা সত্যিই বিরল।

এবছর সবচেয়ে দীর্ঘ ও সবচেয়ে স্বল্প সময় ছিয়াম রাখা হ’ল যে দেশগুলিতে

এবার সবচেয়ে দীর্ঘ সময় ছিয়াম হয়েছে ইউরোপের ডেনমার্কে ২১ ঘণ্টা। গতবার ছিল আইসল্যান্ড ও সুইডেনে (২২ ও ২১ ঘণ্টা)। এরপর এশিয়ার মধ্যে সবচেয়ে দীর্ঘ সময় ছিয়াম রেখেছেন রাশিয়ার মুসলমানরা। তারা ২০ ঘণ্টা ৪৯ মিনিট ছিয়াম পালন করেছেন। এরপর সুইডেন ও নরওয়েতে ২০ ঘণ্টা। যুক্তরাজ্যে ১৯ ঘণ্টা। জার্মানিতে ১৮ ঘণ্টা ৯ মিনিট। কানাডায় ১৮ ঘণ্টা ৯ মিনিট। চীনে ১৭ ঘণ্টা ২৮ মিনিট। ভারতে ১৭ ঘণ্টা ১১ মিনিট। সৌদি আরবে ১৬ ঘণ্টা ১৩ মিনিট। পাকিস্তানে ১৬ ঘণ্টা ৫ মিনিট। কুয়েতে ১৬ ঘণ্টা। বাংলাদেশে ১৫ ঘণ্টা ১৪ মিনিট

স্বল্প সময়ের দেশগুলি মধ্যে এবার সবচেয়ে কম সময় ছিয়াম পালিত হ’ল চিলিতে ১১ ঘণ্টা ৫৮ মিনিট। গতবার এ অবস্থানে ছিল অস্ট্রেলিয়া। এরপর দক্ষিণ আফ্রিকায় ১২ ঘণ্টা। আর্জেন্টিনায় ১২ ঘণ্টা ২১ মিনিট। অস্ট্রেলিয়ায় ১২ ঘণ্টা ৩০ মিনিট। ব্রাজিলে ১৩ ঘণ্টা ৯ মিনিট।