কবিতা


রোযার পরে ঈদ
আলী হোসাইন সাদ্দাম
মহদীপুর, বীরগঞ্জ, দিনাজপুর।
আল্লাহ্র কাছে অতি প্রিয়
ছায়েমের মুখের ঘ্রাণ,
নিজ হাতে দিবেন প্রভু
ছাওমের প্রতিদান।
এমন খুশীর সুসংবাদ
কি আর হ’তে পারে;
তাইতো মুমিন ছিয়াম রাখে
দিন কাটায় অনাহারে।
ঈদের দিনে সবাই মিলে
ঈদগাহেতে যায়,
মান-অভিমান, হিংসা ভুলে
কাঁধে কাঁধ মিলায়।

পাপ করেছি
মুহাম্মাদ বাহাদুর আলী
সমাজকর্ম বিভাগ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়।
পণ করেছি রামাযান মাসে
রাখব ছাওম সব,
গরীব দুঃখীর ক্ষুধার জ্বালা
করব অনুভব।
নেই কোন ভেদ ইফতারীতে
ফকীর-জমিদার,
সবাই মিলে এক থালাতে
বসেন গোলাকার।
পেঁয়াজি-মুড়ি নয়যে বড়
প্রীতির বাঁধন বড়,
সেই বাঁধনে পড়েছে বাঁধা
হয়েছে সবাই জড়।
ঈদ এসেছে
আহমাদ রিজভী
দ্বীপচাঁদপুর, আত্রাই, নওগাঁ।
তন্দ্রাহারা চোখের তারায় অপার খুশী হাত বাড়ায়
ঈদ এসেছে লক্ষ ফুলের রঙীন ডালায়।
তাই পুলকভরা মনে সবার খুশী উম্মাতাল
আকাশ ছোঁয়া মুক্ত এমন থাক না চিরকাল।
রঙীন দিনের আলিঙ্গনে কোটি আলোর দুয়ার খুলে,
ঈদ এসেছে প্রেমের ডালায় ত্যাগের আলো ছড়িয়ে
ভালবাসায় ভরিয়ে সব ভেদাভেদ সরিয়ে,
আপন করে নেয় জড়িয়ে কেউ থাকে না দূরে।
তাই ক্লান্ত মলিন মুখে আজ আলোর ঝর্ণা ঝরে।
ঈদ এসেছে, ঈদ এসেছে, নতুন স্বপ্ন নিয়ে।
***

সকলের ঈদ
ছানাউল্লাহ আববাসী
বাবুপুর, গোমস্তাপুর, চাঁপাই নবাবগঞ্জ।
খুশী খুশী হাসি হাসি
কি যে মজা রাশি রাশি
বাতাসের গায়ে গায়ে
সুমধুর সুর-গো
ঈদ আসে ঈদ হাসে
ঈদ খুশী ঘাসে ঘাসে
এই দিন পৃথিবীটা
স্বর্গের দুর্গ।
মিলে মিশে ঈদ করি
এসো হাতে হাত ধরি
ঈদ আনে কোটি প্রাণে
দ্বেষ নয় সাম্য
ঈদ হোক সকলের
এটাই আজ কাম্য।
***

ঈদের খুশী
মুহাম্মাদ শহীদুল্লাহ
নলত্রী, গোদাগাড়ী, রাজশাহী।
ঈদ এসেছে ঘরে ঘরে
খুশির আয়োজন,
ঈদের খুশী বিলিয়ে দেয়া
সবার প্রয়োজন।
খোকা-খুকির মুখে হাসি
কারণ খুশির ঈদ
নিশি জেগে হর্ষে মেতে
হারিয়েছে নিদ।
খোকা-খুকি দল বেঁধে তাই
দেখছে ঈদের চাঁদ
তাদের মনে খুশির জোয়ার
যেন আনন্দেরই নদ।
সবার মুখে নব পুলকে
নব খুশির রব,
এক সাথে সবাই পালন করবে
ঈদেরই উৎসব।
মুসলিম উম্মাহ্র মাঝে
ঈদের খুশী ভাই,
তাইতো সবাই খুশী মনে
ঈদ করতে যাই।

***