সংগঠন সংবাদ

আন্দোলন 

ইসলামী সম্মেলন

মজীদপুর, নওগাঁ ৬ই মার্চ শুক্রবার : অদ্য বাদ আছর ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন বাংলাদেশ’ নওগাঁ যেলার মান্দা থানাধীন মজীদপুর শাখার উদ্যোগে স্থানীয় মজীদপুর ফাযিল মাদরাসা ময়দানে এক ইসলামী সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মাওলানা আব্দুস সাত্তারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক ও মাসিক আত-তাহরীক সম্পাদক ড. মুহাম্মাদ সাখাওয়াত হোসাইন। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য পেশ করেন ‘সোনামনি’ কেন্দ্রীয় পরিচালক আব্দুল হালীম বিন ইলিয়াস, যেলা ‘আন্দোলন’-এর সহ-সভাপতি আফযাল হোসাইন ও স্থানীয় জনাব মুরশেদ আলম (নওগাঁ) প্রমুখ। অনুষ্ঠানের সঞ্চালক ছিলেন অত্র ফাযিল মাদরাসার আরবী প্রভাষক মাওলানা আকরাম হোসাইন। ইসলামী জাগরণী পরিবেশন করেন মুহাম্মাদ এনামুল হক (নওগাঁ)। সম্মেলনের সার্বিক সহযোগিতায় ছিলেন মজীদপুর শাখা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মাওলানা ছানাউল্লাহ।

তাবলীগী সভা

নওদাপাড়া, রাজশাহী ৭ই মার্চ শনিবার : অদ্য বাদ মাগরিব ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন বাংলাদেশ’ রাজশাহী মহানগরীর উদ্যোগে নওদাপাড়া বাজার আহলেহাদীছ জামে মসজিদে মাসিক তাবলীগী সভা অনুষ্ঠিত হয়। নওদাপাড়া বাজার শাখা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি ডাঃ সেলিম রেযার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত তাবলীগী সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক ড. মুহাম্মাদ সাখাওয়াত হোসাইন। প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে নাজী ফিরক্বার বৈশিষ্ট্য তুলে ধরে সমবেত মুছল্লীদেরকে উক্ত ফিরক্বার অন্তর্ভুক্ত হওয়ার আহবান জানান। অনুষ্ঠানের সঞ্চালক ছিলেন রাজশাহী মহানগরী ‘আন্দোলন’-এর অর্থ সম্পাদক জনাব আশরাফুল ইসলাম। অনুষ্ঠানের সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন নওদাপাড়া বাজার শাখা ‘আন্দোলন’-এর সহ-সভাপতি জনাব আব্দুল হাই, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আযীয এবং সাহিত্য ও পাঠাগার সম্পাদক আব্দুল মালেক প্রমুখ।

যুবসংঘ

কমিটি গঠন

ঢাকা ২৮শে ফেব্রুয়ারী শনিবার : অদ্য বাদ আছর ‘বাংলাদেশ আহলেহাদীছ যুবসংঘ’ ঢাকা যেলা কমিটি পুনর্গঠন উপলক্ষে বংশালস্থ যেলা কার্যালয়ে এক দায়িত্বশীল বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি জনাব মুহাম্মাদ আহসান-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত বৈঠকে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক ড. মুহাম্মাদ সাখাওয়াত হোসাইন। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘যুবসংঘ’-এর কেন্দ্রীয় সভাপতি আব্দুর রশীদ আখতার ও সহ-সভাপতি জামীলুর রহমান। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য পেশ করেন ঢাকা যেলা ‘আন্দোলন’-এর সাধারণ সম্পাদক জনাব তাসলীম সরকার, অর্থ সম্পাদক কাযী হারূণুর রশীদ প্রমুখ। বৈঠকে মুহাম্মাদ হুমায়ূন কবীরকে সভাপতি ও মুহাম্মাদ শফীকুল ইসলামকে সাধারণ সম্পাদক করে ১০ সদস্য বিশিষ্ট যেলা কমিটি পুনর্গঠন করা হয়। প্রধান অতিথি তার ভাষণে নতুন কমিটিকে অভিনন্দন জানান এবং ব্যাপক সফরের মাধ্যমে ঢাকার সর্বত্র ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন’-এর দাওয়াত পৌঁছে দেওয়ার আহবান জানান।

নওদাপাড়া, রাজশাহী ২৮শে ফেব্রুয়ারী শনিবার : অদ্য বাদ মাগরিব দারুল হাদীছ বিশ্ববিদ্যালয় (প্রাঃ) জামে মসজিদে রাজশাহী মহানগরীর উদ্যোগে ‘যুবসংঘ’-এর আল-মারকাযুল ইসলামী আস-সালাফী এলাকা কমিটি পুনর্গঠন উপলক্ষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। রাজশাহী  মহানগরী ‘যুবসংঘ’-এর সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মাদ নাজীদুল্লাহর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় প্রশিক্ষণ সম্পাদক ডঃ মুহাম্মাদ কাবীরুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘যুবসংঘ’-এর কেন্দ্রীয় প্রশিক্ষণ সম্পাদক আব্দুল্লাহিল কাফী। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য পেশ করেন আল-মারকাযুল ইসলামী আস-সালাফী, নওদাপাড়া, রাজশাহীর হেফয বিভাগের শিক্ষক হাফেয লুৎফর রহমান। অনুষ্ঠানে মহানগর ‘যুবসংঘ’-এর  সাংগঠনিক সম্পাদক মোশতাক আহমাদ, সমাজকল্যাণ সম্পাদক যয়নাল আবেদীন, দফতর সম্পাদক আব্দুল্লাহ ছাকিব, মারকাযের শিক্ষক মাওলানা আফযাল হোসাইন, মুহাম্মাদ লতীফুর রহমান ও তানযীল আহমাদ উপস্থিত ছিলেন। অতঃপর মুহাম্মাদ আব্দুল্লাহ আল-মা‘রূফকে সভাপতি ও মুস্তাক্বীম আহমাদকে সাধারণ সম্পাদক করে মারকায এলাকা ‘যুবসংঘ’-এর কমিটি পুনর্গঠন করা হয়।

বগুড়া ৭ই মার্চ শনিবার : অদ্য সকাল ১০-টায় ‘বাংলাদেশ আহলেহাদীছ যুবসংঘ’ বগুড়া যেলা কমিটি পুনর্গঠন উপলক্ষে শহরের সাবগ্রাম চৌরাস্তা আহলেহাদীছ জামে মসজিদে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। যেলা ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি জনাব মুহাম্মাদ আব্দুর রহীমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘যুবসংঘ’-এর কেন্দ্রীয় সভাপতি আব্দুর রশীদ আখতার। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘যুবসংঘ’-এর কেন্দ্রীয় সাহিত্য ও পাঠাগার সম্পাদক আবুল বাশার আব্দুল্লাহ। অনুষ্ঠানে মুহাম্মাদ আব্দুর রায্যাককে সভাপতি ও মুহাম্মাদ আবুবকরকে সাধারণ সম্পাদক করে যেলা কমিটি পুনর্গঠন করা হয়।

প্রশিক্ষণ

নওদাপাড়া, রাজশাহী ১২-১৩ মার্চ বৃহস্পতি ও শুক্রবার : গত ১২-১৩ই মার্চ রোজ বৃহস্পতি ও শুক্রবার ‘বাংলাদেশ আহলেহাদীছ যুবসংঘ’-এর কেন্দ্রীয় উদ্যোগে যেলা কর্মপরিষদ সদস্যদের সমন্বয়ে দু’দিন ব্যাপী প্রশিক্ষণ নওদাপাড়া, রাজশাহীতে অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত প্রশিক্ষণে প্রধান অতিথির ভাষণে মুহতারাম আমীরে জামা‘আত প্রফেসর ড. মুহাম্মাদ আসাদুল্লাহ আল-গালিব বলেন, এ প্রশিক্ষণ হ’ল দেশে প্রচলিত জাহেলিয়াতগুলো বুঝে তা থেকে যুবসমাজকে আল্লাহর পথে ফিরিয়ে আনার প্রশিক্ষণ। আর এজন্য আমাদের লেখা বই ও আত-তাহরীকের সম্পাদকীয়গুলি গভীর মনোযোগে পড়তে হবে। তিনি যুবসংঘের সদস্যদের স্ব স্ব এলাকায় ফিরে গিয়ে উপযেলা, এলাকা ও শাখা সমূহে অত্র প্রশিক্ষণ ছড়িয়ে দেবার আহবান জানান।

‘যুবসংঘ’-এর কেন্দ্রীয় সভাপতি আব্দুর রশীদ আখতারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত প্রশিক্ষণে প্রশিক্ষক হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর সেক্রেটারী জেনারেল অধ্যাপক মাওলানা নূরুল ইসলাম, প্রচার সম্পাদক ড. মুহাম্মাদ সাখাওয়াত হোসাইন, প্রশিক্ষণ সম্পাদক ড. মুহাম্মাদ কাবীরুল ইসলাম, যুববিষয়ক সম্পাদক অধ্যাপক আমীনুল ইসলাম, ‘সোনামণি’র কেন্দ্রীয় পরিচালক আব্দুল হালীম বিন ইলিয়াস, ‘যুবসংঘ’-এর সহ-সভাপতি জামীলুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক আরীফুল ইসলাম, প্রশিক্ষণ সম্পাদক আব্দুল্লাহিল কাফী এবং সাহিত্য ও সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক আবুল বাশার আব্দুল্লাহ। দু’দিনব্যাপী উক্ত প্রশিক্ষণ ১২ই মার্চ সকাল সাড়ে ৬-টায় শুরু হয়ে ১৩ই মার্চ শুক্রবার জুম‘আ পর্যন্ত চলে।

মুযাফফর বিন মুহসিনের যামিনে মুক্তি লাভ

দীর্ঘ ৪ মাস ২দিন মিথ্যা মামলায় কারা নির্যাতন ভোগের পর গত ৮ই মার্চ বরিবার হাইকোর্ট থেকে যামিন পেয়ে পরদিন ৯ই মার্চ সোমবার রাত ৮-টার সময় গাযীপুরের কাশিমপুর-১ কারাগার থেকে মুক্তি লাভ করেন ‘বাংলাদেশ আহলেহাদীছ যুবসংঘে’র সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি ও আল-মারকাযুল ইসলামী আস-সালাফী নওদাপাড়া, রাজশাহীর শিক্ষক মুযাফফর বিন মুহসিন। জেল গেইটে তাকে অভ্যর্থনা জানান ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন বাংলাদেশ’ ঢাকা যেলার অর্থ সম্পাদক  কাযী হারূণুর রশীদ, ‘যুবসংঘ’-এর সাবেক গবেষণা ও প্রকাশনা সম্পাদক মুহাম্মাদ হাসীবুল ইসলাম, জনাব মুহাম্মাদ ইবরাহীম (ঢাকা) ও জনাব রিয়াযুল ইসলাম (ঢাকা)  প্রমুখ। জেল গেইট থেকে বের হয়ে তিনি সাথীদের সাথে কুশল বিনিময়ের পর জনাব ইবরাহীম ছাহেবের আমন্ত্রণে সাড়া দিয়ে ঢাকার ভাসানটেকে তার বাসায় গমন করেন। সেখানে ঢাকা যেলা ‘আন্দোলন’-এর উপদেষ্টা জনাব আলমগীর হোসাইন, সাধারণ সম্পাদক তাসলীম সরকার, ঢাকা যেলা ‘যুবসংঘে’র সভাপতি হুমায়ুন কবীর সহ অনেকে তার সাথে সাক্ষাৎ করেন। এদিকে তাকে অভ্যর্থনা জানানোর জন্য মেহেরপুর থেকে ‘যুবসংঘ’-এর কেন্দ্রীয় সভাপতি আব্দুর রশীদ আখতার নাইটকোচ যোগে ঢাকা রওনা হন। পরদিন সকালে তিনি ভাসানটেকে পৌঁছে তার সাথে সাক্ষাৎ করেন। এছাড়া নরসিংদী যেলা ‘আন্দোলন’-এর সাংগঠনিক সম্পাদক জনাব মাহফূযুল ইসলাম ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক জনাব মুহাম্মাদ শরীফুদ্দীন ভূঁইয়া সহ আরও অনেকে সেখানে তার সাথে সাক্ষাৎ করেন। অতঃপর সেখান থেকে মাইক্রো যোগে ‘আন্দোলন’ ও ‘যুবসংঘে’র নেতৃবৃন্দ তাকে নিয়ে সকাল ১০-টায় রাজশাহীর উদ্দেশ্যে রওয়ানা হন।

পথিমধ্যে সিরাজগঞ্জের কড্ডার মোড়ে স্থানীয় মিন্টু চেয়ারম্যানের আমন্ত্রণে তার বাসায় কিছু সময় যাত্রা বিরতির পর বিকাল ৫-টায় তারা রাজশাহী মারকাযে পৌঁছেন। রাজশাহী পৌঁছলে মারকাযের শিক্ষক-ছাত্রসহ বিভিন্ন পর্যায়ের দায়িত্বশীলগণ তাকে অভ্যর্থনা জানান। তিনি প্রথমে মুহতারাম আমীরে জামা‘আত প্রফেসর ড. মুহাম্মাদ আসাদুল্লাহ আল-গালিবের সাথে সাক্ষাৎ করেন। অতঃপর পশ্চিম পার্শ্বের মসজিদে অপেক্ষমাণ শিক্ষক, ছাত্র এবং রাজশাহী যেলা ও মহানগরীর বিভিন্ন এলাকা থেকে আগত ‘আন্দোলন’ ও ‘যুবসংঘে’র কর্মী ও দায়িত্বশীলদের সাথে সাক্ষাতের জন্য সেখানে গমন করেন। সেখানে সমবেত সুধীদের উদ্দেশ্যে তিনি সংক্ষিপ্ত ভাষণে জেলখানার স্মৃতি তুলে ধরেন। এ সময়ে প্রধান অতিথির ভাষণে মুহতারাম আমীরে জামা‘আত প্রফেসর ড. মুহাম্মাদ আসাদুল্লাহ আল-গালিব বলেন, বিপদে মুমিনের ঈমানের পরীক্ষা হয়। এ পরীক্ষায় ধৈর্য্যধারণ করলে এবং আল্লাহর উপর সন্তুষ্ট থাকলে অশেষ নেকী লাভ হয়। অতএব তার এই কারাবরণ যেন পরকালীন মুক্তির অসীলা হয়, তিনি সেই দো‘আ করেন।

‘যুবসংঘ’-এর কেন্দ্রীয় সভাপতি মুহাম্মাদ আব্দুর রশীদ আখতারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সমাবেশে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর যুববিষয়ক সম্পাদক অধ্যাপক আমীনুল ইসলাম। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ঢাকা যেলা ‘আন্দোলন’-এর অর্থ সম্পাদক কাযী হারূণুর রশীদ, আল-মারকাযুল ইসলামী আস-সালাফী, নওদাপাড়া, রাজশাহীর ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মাওলানা আব্দুল খালেক সালাফী ও মারকাযের শিক্ষক মাওলানা আব্দুর রায্যাক বিন ইউসুফ প্রমুখ। অনুষ্ঠানের সঞ্চালক ছিলেন ‘যুবসংঘ’-এর সাবেক কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি ও মারকাযের তরুণ শিক্ষক নূরুল ইসলাম।

উল্লেখ্য যে, গত ৭ই নভেম্বর শুক্রবার বাদ জুম‘আ ঢাকার মুহাম্মাদপুর আল-আমীন জামে মসজিদে খুৎবা দিয়ে ছালাত শেষে বের হবার পর ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের দু’জন কর্মকর্তা জিজ্ঞাসাবাদের নাম করে মুযাফ্ফর বিন মুহসিনকে নিয়ে যায়। অতঃপর ২দিন ডিবি কার্যালয়ে আটকে রাখার পর অজ্ঞাতনামা দুর্বৃত্তদের হাতে নিহত ‘চ্যানেল আই’-এর উপস্থাপক মাওলানা নূরুল ইসলাম ফারুকী হত্যা মামলায় সন্দেহ ভাজন আসামী হিসাবে গ্রেফতার দেখায়।

পুরস্কার বিতরণী ও আলোচনা সভা

রাজশাহী ১৪ই মার্চ শনিবার : অদ্য বাদ আছর ‘বাংলাদেশ আহলেহাদীছ যুবসংঘ’ রাজশাহী যেলার পবা থানাধীন ভূগরইল শাখার উদ্যোগে স্থানীয় সানবীম একাডেমী মিলনায়তনে সাধারণ জ্ঞান প্রতিযোগিতা-২০১৫ এর পুরস্কার বিতরণী ও আলোচনা সভা অুনষ্ঠিত হয়। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাষা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. সৈয়দ আবু আব্দুল্লাহ মুর্তাযার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ‘আন্দোলন’-এর কেন্দ্রীয় প্রচার সম্পাদক ড. মুহাম্মাদ সাখাওয়াত হোসাইন। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী মহানগরী ‘আন্দোলন’-এর সভাপতি মুহাম্মাদ গিয়াছুদ্দীন ও অর্থ সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন রাজশাহী মহানগরী ‘যুবসংঘ’-এর অর্থ সম্পাদক মুকাম্মাল হোসাইন, ভূগরইল শাখা ‘যুবসংঘ’-এর সভাপতি রবীউল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক আকমাল হোসাইন প্রমুখ। অনুষ্ঠানের সঞ্চালক ছিলেন রাজশাহী মহানগরী ‘যুবসংঘ’-এর সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মাদ নাজীদুল্লাহ।

উল্লেখ্য যে, গত ১৩ই মার্চ শুক্রবার বিকাল ৪-টায় ভূগরইল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পূর্ব থেকে সরবরাহকৃত প্রায় ৮ শত প্রশ্নোত্তর সম্বলিত ‘জাগ্রত প্রতিভা’ বুকলেট-এর উপরে লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। প্রায় দুই শতাধিক শিক্ষার্থী উক্ত প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে। প্রতিযোগিতায় ১ম স্থান অধিকার করে আল-মারকাযুল ইসলামী আস-সালাফী, নওদাপড়া, রাজশাহীর ৮ম শ্রেণীর ছাত্র মুহাম্মাদ নূরুল ইসলাম। ২য় স্থান অধিকার করে একই প্রতিষ্ঠানের ৭ম (খ) শ্রেণীর ছাত্র মুহাম্মাদ এমদাদুল হক। ৩য় স্থান অধিকার করে রহনপুর ইউসুফ আলী কলেজ, চাঁপাই নবাবগঞ্জের একাদশ শ্রেণীর ছাত্র জুয়েল রাণা। ১ম স্থান অধিকারীকে নগদ ১৫০০/= টাকা ও ৫০০ টাকার বই, ২য় স্থান অধিকারীকে নগদ ১০০০/= টাকা ও ৪০০ টাকার বই এবং ৩য় স্থান অধিকারীকে নগদ ৫০০/= টাকা ও ৩০০ টাকার বই পুরস্কার হিসাবে প্রদান করা হয়। এছাড়া ক্রমানুযায়ী ১১ জনকে বিশেষ পুরস্কার এবং অংশগ্রহণকারী সকলকে সান্ত্বনা পুরস্কার দেওয়া হয়।