কবিতা

সাড়া দাও দাও সাড়া

আমীরুল ইসলাম (মাষ্টার)

ভায়া লক্ষ্মীপুর, চারঘাট, রাজশাহী।

আজ পৃথিবী ভরা দুঃখ-বেদনার কথা

কওয়া সওয়া বড় ভার

নির্যাতনের যাতাকলে ফেলে

পিষে মারে নৃপতি ক্ষমতাধর।

বিশ্বজুড়ে শোষক গোষ্ঠীর

ক্ষমতা লাভের মোহ

কায়েমী স্বার্থ হাছিল করিতে

লেগে রয় অহরহ।

এত মিথ্যাচার ছলনা ধোঁকার কথা

আর কত দিন শুনিবে নিরীহ জনতা।

যে জনতার কাছে ক্ষমতা ভিক্ষা করিয়া

হয় যে ক্ষমাতাবান

সেই অশুভ ক্ষমতায় আনে

দেশের অকল্যাণ।

হরণ করিয়া লয় যে সকল

স্বাধীনতা-স্বাধিকার

পাঁচটি বছর থাকে সবাই

অবাক নির্বিকার।

যখনই জানাইতে যায় স্বাধীনতা

ন্যায্য দাবীর কথা

তখনই ঘোরায় নির্যাতনের

কল যাতা।

জেল-যুলুম হামলা-মামলা

গুম-খুন হয় কত!

নৃপতিদের বদলায় না স্বভাব

কাল-যুগ হ’লেও গত।

ইতিহাসের পাতায় স্থান পেয়েছে

কত যে শাসক দল!

ফেরাঊন নমরূদ হামান কারূণ

আবরাহা সকল।

তারাও করেনি এত নির্যাতন

এত গণহত্যা,

না করিয়াছে শোষণ-পীড়ন

এত নির্যাতন এত মিথ্যা।

ভোটের বাক্স কেবল

মিথ্যা ছলনায় ভরা

কোটি মানুষের স্বাধিকার

স্বাধীনতা হরণ করা।

ঐ বাক্সেই ভরা গোলামীর জিঞ্জির

এক দলীয় শাসন, স্বাধীনতা দলটির।

যাহাদের ভোটে হয়

ভীষণ ক্ষমতাবান

তাদেরই বুকে গুলি করে

একি নিষ্ঠুর প্রাণ!

তাইতে বিশ্বে এত হাহাকার

অশান্তি অনল জ্বলে

পরাধীনতার শিকল পরা

জনতার হাতে পায়ে গলে।

এবার আবার জাগো বিশ্ববাসী

গাও শিকল ভাঙ্গার গান

বিশ্ব মাঝে কায়েম করিতে

সুশাসক সুশাসন।

তবেই বহিবে বিশ্বময়

সুখের ফল্গুধারা

মরণ পণ করিয়া এবার

সাড়া দাও দাও সাড়া।

 

শোভে

মুহাম্মাদ মাক্বছূদ আলী

ইটাগাছা, বাঁকাল, সাতক্ষীরা।

পশুতে পশু শোভে দানবে দানব,

বৃক্ষে বৃক্ষ শোভে মানবে মানব।

মৃদু তরঙ্গ তালে শোভে তরণী,

পুষ্প সুবাসিতে শোভে রজনী।

ফাগুন সমীরণ শোভে শোভে কবি মনে,

কবিতার ছন্দ শোভে চরণে চরণে।

দাম্পত্য জীবন শোভে সতীর আচরণে,

সংসারে সুখ শোভে স্বামীর ঈমানে।

বিদ্বানে বিদ্বান শোভে মূর্খে শোভে মূর্খ,

বে-দলীলে মূর্খরাই করে শুধু তর্ক।

বেদ্বীনে বেদ্বীন শোভে দ্বীনে শোভে দ্বীন,

মুমিনে মুমিন শোভে কমিনে কমিন।

 

আহলেহাদীছ আন্দোলন

আব্দুস সাত্তার মন্ডল

তাহেরপুর, রাজশাহী।

সালাম জানাই দ্বীনদার পরহেযগার সবাইকে,

আলহামদুলিল্লাহ বলি সবাই, শুকরিয়া মহান আল্লাহকে।

আহলেহাদীছ আন্দোলন প্রতিষ্ঠা ঊনিশশত চুরানববই সনে,

অহী ভিত্তিক সমাজ আর রাষ্ট্র গঠনের আন্দোলনে।

আন্দোলনে অভিজ্ঞ সুদক্ষ কর্মনিষ্ঠায় সংগঠনে আছেন যারা,

মুসলমানদের আক্বীদা ও আমল সংশোধনে সচেষ্ট তাঁরা।

সংগঠন, প্রচার, প্রশিক্ষণ আর সমাজ সংস্কারই প্রধান কাজ যার,

কুরআন ও সুন্নাহ ভিত্তিক পূর্ণাঙ্গ জীবন আর শিক্ষা ব্যবস্থার।

শিশু-কিশোরদের জন্য আছে তাদের ‘সোনামণি’ সংগঠন,

যুবকদের জন্য ‘যুবসংঘ’ বয়স্কদের জন্য ‘আহলেহাদীছ আন্দোলন’।

স্বতন্ত্র পরিবেশে মহিলাদের মাঝে আছে দাওয়াতের ব্যবস্থা

তাদের মাঝে কাজ করে ‘আহলেহাদীছ মহিলা সংস্থা’।

অহী ভিত্তিক চলার জন্য মাসিক ‘আত-তাহরীক’ পত্রিকা

‘হাদীছ ফাউন্ডেশন’ প্রকাশ করে দলীল ভিত্তিক বই-পুস্তিকা।

ইহকাল ও পরকালে আমরা শান্তি যদি চাই

আহলেহাদীছ আন্দোলনের বিকল্প কিছু নাই।